ঢাকা ০২:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মোবারক

ভোলার চরফ্যাশনে

স্বামী ও শাশুড়ীর নির্যাতনে স্ত্রীর মৃত্যু: হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে গেলো স্বামী

ভোলা চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানা এলাকায় স্বামী ও স্কুল শিক্ষিকা শাশুড়ির নির্যাতনের শিকার হয়ে ইয়াসমিন (২৪) নামের এক গৃহবধূ বিষপানে মারা গেছেন।

 নিউজ বিজয়ের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

রোববার( ২৯ জানুয়ারী) দুপুরে শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের নজর আলী মাঝি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইয়াসমিন ঢাকা গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ এলাকার আবুল হোসেনের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে দুই বছর আগে শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের ৩১ নং উত্তর শশীভূষণ সরকারি প্রাইমারি স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা নাজমার বেগমের ছেলে নাঈম (২৮) এর সাথে ইয়াসমিন বেগমের বিয়ে হয়।বিয়ের পরে (নাইম- ইয়াসমিন দম্পতির)ঘরে একটি কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করেন।কন্যা সন্তান কেন জন্মগ্রহণ করলো এমন মানসিক যন্ত্রণা পাশাপাশি মাদক সেবন করার জন্য যৌতুকের টাকা এনে দিতে প্রতিনিয়ত মাদক আসক্ত স্বামী নাঈম, ইয়াসমিনকে মানসিক নির্যাতন ও বেধড়ক মারধর করতেন। ইয়াসমিন বেগম জখন বাবার বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে অস্বীকৃতি জানালে পুনরায় রোববার সকালে স্বামী নাঈম ও শাশুড়ি স্কুল শিক্ষিকা নাজমা বেগম পুত্রবধূ ইয়াসমিন কে গালমন্দ এবং বেদম প্রহার করেন।

প্রতিবেশিরা জানান বিভিন্ন ধরনের অপবাদ ও নির্যাতনের একপর্যায়ে ইয়াসমিনকে তালাক দিয়ে শ্বাশুড়ি তার ছেলেকে তৃতীয় বিয়ে করাবে বলে হুমকি দেন ,ক্ষোভে দুঃখে ওইদিনই ইয়াসমিন বেগম বিষপান করেন।

এরপর তাঁর স্বামী মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণার পর স্ত্রীর লাশ হাসপাতাল রেখে পালিয়ে যায় স্বামী নাঈম।

অভিযুক্ত স্বামী নাঈম ও শাশুড়ী নাজমা বেগম ঘটনার পর আত্মগোপন থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

শশিভূষণ থানার ওসি মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান মৃত ইয়াছমিনের লাশ পোস্ট মর্ডাম এর জন্য ভোলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় শশীভূষণ থানায় কোন মামলা হয়নি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরা দেশের মানুষের জন্য কোনো কাজ করেনি: প্রধানমন্ত্রী

ভোলার চরফ্যাশনে

স্বামী ও শাশুড়ীর নির্যাতনে স্ত্রীর মৃত্যু: হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে গেলো স্বামী

প্রকাশিত সময় :- ০১:৪০:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

ভোলা চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানা এলাকায় স্বামী ও স্কুল শিক্ষিকা শাশুড়ির নির্যাতনের শিকার হয়ে ইয়াসমিন (২৪) নামের এক গৃহবধূ বিষপানে মারা গেছেন।

 নিউজ বিজয়ের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

রোববার( ২৯ জানুয়ারী) দুপুরে শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের নজর আলী মাঝি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইয়াসমিন ঢাকা গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ এলাকার আবুল হোসেনের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে দুই বছর আগে শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের ৩১ নং উত্তর শশীভূষণ সরকারি প্রাইমারি স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা নাজমার বেগমের ছেলে নাঈম (২৮) এর সাথে ইয়াসমিন বেগমের বিয়ে হয়।বিয়ের পরে (নাইম- ইয়াসমিন দম্পতির)ঘরে একটি কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করেন।কন্যা সন্তান কেন জন্মগ্রহণ করলো এমন মানসিক যন্ত্রণা পাশাপাশি মাদক সেবন করার জন্য যৌতুকের টাকা এনে দিতে প্রতিনিয়ত মাদক আসক্ত স্বামী নাঈম, ইয়াসমিনকে মানসিক নির্যাতন ও বেধড়ক মারধর করতেন। ইয়াসমিন বেগম জখন বাবার বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে অস্বীকৃতি জানালে পুনরায় রোববার সকালে স্বামী নাঈম ও শাশুড়ি স্কুল শিক্ষিকা নাজমা বেগম পুত্রবধূ ইয়াসমিন কে গালমন্দ এবং বেদম প্রহার করেন।

প্রতিবেশিরা জানান বিভিন্ন ধরনের অপবাদ ও নির্যাতনের একপর্যায়ে ইয়াসমিনকে তালাক দিয়ে শ্বাশুড়ি তার ছেলেকে তৃতীয় বিয়ে করাবে বলে হুমকি দেন ,ক্ষোভে দুঃখে ওইদিনই ইয়াসমিন বেগম বিষপান করেন।

এরপর তাঁর স্বামী মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণার পর স্ত্রীর লাশ হাসপাতাল রেখে পালিয়ে যায় স্বামী নাঈম।

অভিযুক্ত স্বামী নাঈম ও শাশুড়ী নাজমা বেগম ঘটনার পর আত্মগোপন থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

শশিভূষণ থানার ওসি মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান মৃত ইয়াছমিনের লাশ পোস্ট মর্ডাম এর জন্য ভোলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় শশীভূষণ থানায় কোন মামলা হয়নি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন