শুক্রবার , ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও অপরাধ
  2. আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাস
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আপনার স্বাস্থ্য
  5. ইতিহাসের এই দিনে
  6. উত্তরাঞ্চলের খবর
  7. উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
  8. কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য
  9. খেলাধুলা
  10. চাকরির খবর
  11. দেশ প্রতিদিন
  12. ধর্ম ও জীবন
  13. নারী ও শিশু
  14. প্রতিদিনের কথা
  15. প্রতিদিনের রাশিফল

সাত তারার আকাশ’ এর কিছু অপ্রকাশিত কথা,

প্রতিবেদক
admin2022
জানুয়ারি ১৮, ২০১৯ ১০:৩৯ অপরাহ্ণ

সাত তারার আকাশএর কিছু অপ্রকাশিত কথা,
যুথিকা দাস
১৮/০১/১৯
_______________________________________
সময় জলের স্রোতের ধারার মতো চলে যায় চিরন্তন অববাহিকায়, আজ আমি সময়ের বুকেও হারিয়ে যেতে বসেছি, মাকে হারালাম অল্প কদিন আগে। মনের বোঝা হাল্কা করতে গিয়ে আমার প্রয়াস। কিছুদিন আগে, গত ১৬/১২/১৮ তারিখের কথা, অক্লান্ত পরিশ্রম খড়কুটো পোড়ানোর পর
★সাত তারার আকাশ★
কাব্যগ্রন্থটি আকাশ দেখল, এই কাব্যগ্রন্থের পেছনে যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন নিশ্চয় তাদের শ্রম, মেধা ও সময় দেওয়ার তুলনায় যুথিকা দাস চির ঋণী হয়ে রইলাম আজীবন।

আসাদুল্লাহ ভাইয়া অথবা ফারুক প্রধান ভাইয়া শুভ্র দেব , মাধবীলতা, অন্ত ভাইয়া, ইমরান শাহ্ সবাই বসে ছিলেন এক টেবিলে একদিন, ওরা যদিও বি সা নি সংগঠনের সংগঠক, তবুও ওরা সাত তারার আকাশ -এর আলোচনা টেবিলে বসেন। কারণ সাত তারার আকাশ এবং বি সা নি
দুইটা ভিন্ন বস্তু ছিল না, বি সা নি সভাপতি ও কবি মোঃ আসাদুল্লাহ উনি অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন কবিতাগুলো সংকলনই উনার হাতের কৃতিত্ব অনস্বীকার্য! আমি তবুও বলছি সম্পাদকীয় কলমে সবার নাম উচ্চারণ করেছি যদিও তবুও ত্রুটি থেকে যায় তা সময়ের । সব মুখে উচ্চারণ হয়ত করতে পারিনি! দুর্ভাগ্য আমারই । ২৭তম বইমেলা- শিলচর, মোড়ক উন্মোচনে হয়তবা সময়ের স্বল্পতার জন্য এ নামগুলো উচ্চারণ সম্ভব হয়নি তবুও উনাদের বিষয়ে অব্যক্ত কৃতজ্ঞতা গোপন থাকেনি মনের অন্তর দেওয়ালে।

কাব্য নিকেতন প্রকাশনা ও বঙ্গজ প্রকাশন থেকে এক আকাশ স্বপ্ন নিয়ে কাব্যগ্রন্থ “সাত তারার আকাশ” আত্মপ্রকাশ হলে সিদ্ধান্ত হয় শিলচর মোড়ক উন্মোচন হবে। দায়িত্ব কাঁধে নিলেন ইমরান শাহ্।এত প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও ইমরান বাংলাদেশ থেকে অপরিচিত পথ ধরে পরিশ্রম করে বুকে কাঁধে বয়ে বইয়ের পাহাড় নিয়ে এসেছে পৌঁছাল শিলচরে। এ পরিশ্রম ইমরানের কাছে হয়তো ভুলে থাকার মত নয় অব্যক্ত ইতিহাস। কিন্তু আমি হাড়ে হাড়ে বুঝলাম সারা তার যোগাযোগহীন ছিল পুরো চব্বিশ ঘণ্টা ইমরান, উৎকণ্ঠায় কাটালাম, শেয়ার কাউকে করিনি, তবে আমি কিছুই করলাম না শুধু ওদের সে পরিশ্রমের বিনিময়ে। কৃতজ্ঞ হিসেবে বইটি কে দেশ থেকে দেশান্তরে পাঠানোর ব্যবস্থা করছি আমি! শুধু সাহিত্য সেবক মাত্র সাহিত্যের সেবা করি, কোন লাভ পূজা প্রতিষ্ঠা আমার কাম্য নয় কোনদিনই ছিলনা বা নেই। আমি কারো কাছ থেকে কিছু পাওনা বাকি আছে বলে মনে করি না! আমি সবার কাছে চিরঋণী, বাংলা ভাষার কাছে ঋণী , যারা আমার বাংলা ভাষাকে বুকের রক্ত দিয়ে রক্ষা করেছিল তাদের জন্য উৎসর্গ করি আমার সব যশ, সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ। ভাষাসেনানীর নাম আমি উচ্চারণ না করলেও তাদের কৃতিত্ব কখনো হীন হবে না, হবে না কোনোদিন ম্লান ও ক্ষুণ্ণ হবে না। তেমনি এই আকাশের কালো মেঘ সরাতে সম্ভাবনার সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে ছিল অনেক হাজারও লক্ষ-কোটি কালান্তক ঝড়! তাকেও উপেক্ষা করে এবার সাত তারার আকাশ আলোর মুখ দেখলো তবুও কিছু কথা গোপন থেকে যায় যা প্রকাশ করা কখনো যায় না আবার প্রকাশ করলে তার পুরোটাই কম পড়ে যায়, এ প্রকাশ এক অক্ষমতাই মনে করি।

সেদিন শিলচর বইমেলা প্রাঙ্গনে বিভিন্ন স্থানীয় নামি দামি পত্র-পত্রিকা সংগঠন, লেখক, প্রাবন্ধিক, কবি, সাংবাদিক, আসিশদা, শিলচরের প্রাণ পুরুষ শ্রদ্ধেয় অতিন দাস ও আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগীয় প্রধান বিশ্বতোষ চৌধুরী সহ অনেক গুণীজনের হাত ধরে সাত তারার আকাশ উন্মোচন হয়। গ্রন্থটি উন্মোচনে আদিমা মজুমদার, জাহানারা মজুমদার, দিলু দাস, সুমন দাস, গৌতম তালুকদার, বাহার বড়ভূঁইয়া সহ অনেকের সহযোগিতা পেয়েছি, আন্তরিক শুভেচ্ছা ভারত বাংলাদেশের কবিতা পাঠকদের জন্য যাদের নাম বলেছি আর যাদের নাম বলিনি সবার কাছে ঋণী রইলাম।

প্রিয় পাঠক প্রকাশক স্রোত প্রকাশন তথা পরিবেশক কবি গোবিন্দ ধরের কাছেও কৃতজ্ঞতা রইল । আগামী পথ চলার নিরিখে শুভকামনা জানাই সাত কবি মোঃ আসাদুল্লাহ, ইঞ্জিনিয়ার আনোয়ারুল হক, কবি ফারুক প্রধান, কবি ফিরোজা খান, কবি জন্মেঞ্জয় ঘোড়াই, কবি ইমরান শাহ্, বিশেষ অতিথি কবি এন আলম অন্ত ভাইয়া, কবি সুমিতা মুখার্জী, কবি স্বপ্না মিদ্যা পাশে থাকার জন্য অধম অভাগা যুথিকা দাস চির কৃতজ্ঞ রইলাম।

চির ধন্য
যুথিকা দাস।
শিলচর।
তাং ১৬/১২/১৮

 

সর্বশেষ - ফিচার