বৃহস্পতিবার , ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও অপরাধ
  2. আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাস
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আপনার স্বাস্থ্য
  5. ইতিহাসের এই দিনে
  6. উত্তরাঞ্চলের খবর
  7. উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
  8. কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য
  9. খেলাধুলা
  10. চাকরির খবর
  11. দেশ প্রতিদিন
  12. ধর্ম ও জীবন
  13. নারী ও শিশু
  14. প্রতিদিনের কথা
  15. প্রতিদিনের রাশিফল

কালীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে মিজুকে দেখতে চায় এলাকাবাসী

প্রতিবেদক
admin2022
জানুয়ারি ১৭, ২০১৯ ৯:০৩ অপরাহ্ণ

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : একাদশ জাতীয় সংসদের রেষ কাটতে না কাটতেই শুরু হয়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ঢামাঢোল। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তথ্য অনুযায়ী আগামী মার্চে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রথম দফার উপজেলা নির্বাচন। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসীল ঘোষনা হতে পারে ফেব্রুয়ারিতেই। সময় ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নির্বাচনী দৌড় ঝাপ শুরু করেছেন। বিশেষ করে নবীণদের নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মাঝে সাড়া ফেলেছে ব্যাপক ভাবে। চায়ের দোকান, পাড়া মহল্লা, মাঠঘাট, হাটবাজার সর্বত্র সাধারণ মানুষের মাঝে চলছে সরগরম আলোচনা।

দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় প্রার্থীদের দল থেকে মনোনয়ন নেয়ার জন্য সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজ যোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য তৎপরতা শুরু করেছেন।

এলাকাবাসির মতে, দলমত নির্বিশেষে কালিগঞ্জ উপজেলার সাধারণ মানুষ উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় মিজানুর রহমান মিজুকে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলবলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরপর ২ বারের নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু। সাধারণ মানুষের মধ্যে তার আকাশচুম্বি যে জনপ্রিয়তা রয়েছে তাতে তাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিলে তার বিজয়ী হওয়া প্রায় সুনিশ্চিত। প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে তিনি থেকেছেন সামনের সারিতে। দিয়েছেন সফল নেতৃত্ব। দল ও জনগণের অধিকার রক্ষায় তিনি একজন নিবেদিতপ্রাণ। জনবান্ধব এবং পরীক্ষিত ও লড়াকু সৈনিক। প্রচলিত রাজনৈতিক ধারায় থাকলেও লোভ লালসার ¯্রােতে গা ভাসাননি তিনি। তৃণমুল নেতাকর্মিদের সঙ্গে থেকে এখনও সাধারণ মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন তিনি।

আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে। নির্বাচনের ঘোষণা আসার পূর্বেই কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে কে কে প্রার্থী হতে চান তা নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা। ইতোমধ্যেই অনেকেই দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার বিষয়টি জানান দিচ্ছেন।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদে আ’লীগ থেকে নাম শোনা যাচ্ছে, কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক ও চলবলা ইউনিয়নের পরপর নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু, জেলা আওয়ামী লীগ’র সহ-সভাপতি কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান তাহির তাহু। বর্তমান কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সমাজকল্যান মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এর ছোট ভাই মাহাবুবুজ্জামান আহমেদ পুনরায় মনোনয়ন চাইবেন।

মিজানুর রহমান মিজু জানান, দলীয় মনোনয়ন না পেলে সিদ্ধান্ত ছেড়ে দিব দলীয় নেতাকর্মী ও জনগণের ওপর। তারা যদি আমাকে প্রার্থী হিসাবে চান তখন সিদ্ধান্ত নিব। আমার রাজনীতি মুলত জনগণকে নিয়ে, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আমি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে চাই। আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দিবেন। আমি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে এগিয়ে নিতে ঐক্যবদ্ধ সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করতে চাই।

জানা গেছে, লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার ৭নং চলবলা ইউনিয়ন পরিষদের পরপর ২ বারের নির্বাচিত স্বর্নপদক প্রাপ্ত সফল চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু। তিনি বর্তমানে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক ও লালমনিরহাট জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য। ১৯৯১ সালে কে.ইউ.পি কলেজ সংসদের ছাত্রলীগ মনোনীত এ.জি.এস। ১৯৯৪ সালে লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সংগঠন সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে তিনি সাংবাদিকতায় প্রবেশ করেন। তিনি চ্যানেল আই, বার্তা সংস্থা ’ইউ.এন.বি’ও দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। কর্মজীবন শুরু হয় শিক্ষকতা দিয়ে। তিনি বুড়ীরদিঘী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। শিক্ষকতা মূল পেশা হলেও জনসেবা আর শিক্ষা প্রতিষ্টান প্রতিষ্টায় এগিয়ে গেছেন এই তরুণ জননেতা। তিনি প্রতিষ্টা করেছেন শিয়াল খোওয়া স্কুল এন্ড কলেজ, অচিন তলা দাখিল মাদ্রাাসা, শিয়ালখোওয়া প্রি-ক্যাডেট স্কুল ও সূর্যমুখী টেকনিক্যাল এন্ড বি.এম কলেজ।

সর্বশেষ - ফিচার