সোমবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২২শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও অপরাধ
  2. আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাস
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আপনার স্বাস্থ্য
  5. ইতিহাসের এই দিনে
  6. উত্তরাঞ্চলের খবর
  7. উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
  8. কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য
  9. খেলাধুলা
  10. চাকরির খবর
  11. দেশ প্রতিদিন
  12. ধর্ম ও জীবন
  13. নারী ও শিশু
  14. প্রতিদিনের কথা
  15. প্রতিদিনের রাশিফল

লালমনিরহাট-৩ আসনে দুই হেভিওয়েটের ভোটযুদ্ধ জমজমাট

প্রতিবেদক
admin2022
ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮ ৯:১৬ অপরাহ্ণ

লালমনিরহাট: লালমনিরহাট জেলা বাংলাদেশের মানচিত্রের সর্ব উত্তরে হিমালয়ের গাঁ ছুয়ে তিস্তা-ধরলা বিধৌত সমতল ভূমির ছোট একটি জেলা। গড় আয়তনে ছোট হলেও লম্বায় কিন্তু ১০০ মাইল পার। ব্রিটিশ আমলে বাংলা বিহার ও আসাম রেল যোগাযোগের এবং আকাশ পথে ভারত উপ-মহাদেশের আকাশ প্রতিরক্ষার কেন্দ্রস্থল ছিল এই লালমনিরহাট।

লালমনিরহাট-৩ সদর আসনটি উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্ম¥দ কাদের (জিএম কাদের) ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু। এই দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর ভোট যুদ্ধ জমে উঠেছে এ নির্বাচনী এলাকাজুড়ে।

এই আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি ও জাতীয় পার্টির রয়েছে বাঁধভাঙ্গা জোয়ার। প্রার্থীরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় উৎসবে মুখরিত করে রেখেছে লালমনিরহাটের এ আসনটি। দুলুর ধানের শীষ ও কাদেরর লাঙ্গলের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন জোটের শরীরদলগুলোও। সব মিলিয়ে লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনটিতে এখন উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। তবে বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগ, এখনো নানাভাবে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করা হচ্ছে। ফলে সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে প্রচারণা চালাতে পারছেন না তারা।

এলাকার ভোটাররা ভোটকেন্দ্রের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার দাবি জানিয়ে বলেন, সৎ, যোগ্য ও যে এলাকার উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে এমন প্রার্থীকেই নির্বাচিত করবেন তারা।

মহাজোটের প্রার্থী জিএম কাদের বলেন, আমরা যেখানে গেছি সেখানেই ভোটারদের সমর্থন দেখতে পেয়েছি। আমাদের সঙ্গে ওনারা থাকবেন বলে জানিয়েছেন। আমরা কোনো প্রতিশ্রুতি দেই না, আমরা বলি, যদি মহাজোট ক্ষমতায় আসে লালমনিরহাট কিংবা এ এলাকার মানুষের কিছু কাজ করার কথা সরকার থেকে রয়েছে। আমরা যদি দায়িত্বভার গ্রহণ করি তাহলে এ কাজের সুফল এ অঞ্চলের মানুষ পাবে।

তবে বিএনপির প্রার্থী আসাদুল হাবিব দুলু অভিযোগ করে বলেন, এখনো আমরা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে প্রচারণা চালাতে পারছি না। পুলিশি হয়রানি এখনো বন্ধ হয়নি, প্রতিদিনই নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। আমাদের প্রচার-প্রচারণায় ব্যবহৃত জিনিসপত্র ছিঁড়ে ফেলা হচ্ছে।

সুষ্ঠু ভোট হলে বিপুল ভোটের ব্যবধানের বেগম খালেদা জিয়ার মার্কা ধানের শীষ জয়লাভ করবে বলে দাবি করেন তিনি।

নিজেদের দক্ষতা আর উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট চাচ্ছেন এ দুই হেভিওয়েট প্রার্থী। চলছে পথসভা, উঠান বৈঠক, খণ্ড মিছিল, কুশল বিনিময়, পোস্টার বিতরণহ আলোচনা।

তবে যে যাই বলুক, প্রার্থীরা ভোটারদের মন কতটা জয় করতে পেরেছেন তার জন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

সর্বশেষ - ফিচার