রবিবার , ২২ এপ্রিল ২০১৮ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও অপরাধ
  2. আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাস
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আপনার স্বাস্থ্য
  5. ইতিহাসের এই দিনে
  6. উত্তরাঞ্চলের খবর
  7. উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
  8. কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য
  9. খেলাধুলা
  10. চাকরির খবর
  11. দেশ প্রতিদিন
  12. ধর্ম ও জীবন
  13. নারী ও শিশু
  14. প্রতিদিনের কথা
  15. প্রতিদিনের রাশিফল

হাতীবান্ধায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই

প্রতিবেদক
admin2022
এপ্রিল ২২, ২০১৮ ৪:২৬ অপরাহ্ণ

লালমনিরহাট প্রতিবেদক : লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় মহির আলী (৪৫) নামে এক হোটেল ব্যবসায়ীকে ছুড়ি দিয়ে কুপিয়ে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই করেছে সন্ত্রাসীরা।
এ সময় তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসা রিক্সা চালক নজরুল ইসলামকেও (৪০) কুপিয়ে গুরতর ভাবে আহত করেছে ছিনতাইকারীরা। আহতদের গুরতর অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
এ ছিনতাইয়ের ঘটনাটি  শনিবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার কাউঞ্চিল পাড়ার ইএসডিও অফিস সংলগ্ন রাস্তায় ঘটেছে।
আহত মহির আলী অত্র উপজেলার টংভাঙ্গা ইউপি পরিষদ সংলগ্ন কাউঞ্চিল পাড়ার বাসিন্দা ও উপজেলার মেডিকেল মোড়ে অবস্থিত বৈশাখী হোটেল এ্যান্ড রেস্টুরেন্টের মালিক।
আর আহত রিক্সা চালক নজরুল ইসলাম উপজেলার পশ্চিম বেজগ্রামের মৃত আবেদ মিয়ার পুত্র।
এ বিষয়ে আহত হোটেল ব্যবসায়ী মহির আলী জানান, শনিবার রাত ১১ টার কিছু আগে আমি আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বৈশাখী হোটেল থেকে একটি ব্যাগে সাড়ে তিন লক্ষ্য টাকা নিয়ে বের হই। এরপর নজরুলের রিক্সায় চড়ে আমার বাড়ি সামনে ইএসডিও অফিস সংলগ্ন রাস্তায় রিক্সা দাড় করাই। এ সময় দুইজন অতর্কিত ভাবে আমার মাথায় ছুড়ি দিয়ে কোপায়।
এ সময় আমার হাতে থাকা সাড়ে তিন লক্ষ্য টাকার ব্যাগটি মাটিতে পরে যায়।
তখন রিক্সা চালক নেমে দ্রুত ব্যাগটি নিতে গেলে তাকেও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে সন্ত্রাসীরা ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় আমাদের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা আমাদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার নাঈম হাসান জানান, মহির আলীর মাথায় চারটি শেলাই ও নজরুল ইসলামের মাথায় প্রায় ১২-১৫টি শেলাই দেয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা গুরতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে প্রেরন করা হয়েছে।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) ওমর ফারুক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমি ঘটনাটি শোনা মাত্র উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে ছুটে যাই এবং ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাই। এ ঘটনাটি কে বা কাহারা ঘটিয়েছে তা তদন্ত করা হচ্ছে। এখন অবদি আমরা কাউকে আটক করতে পারিনি। পুলিশ বিশেষভাবে কাজ করছে দ্রুত জড়িতদের বের করবে।

সর্বশেষ - ফিচার