বৃহস্পতিবার , ৫ এপ্রিল ২০১৮ | ২২শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও অপরাধ
  2. আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাস
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আপনার স্বাস্থ্য
  5. ইতিহাসের এই দিনে
  6. উত্তরাঞ্চলের খবর
  7. উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
  8. কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য
  9. খেলাধুলা
  10. চাকরির খবর
  11. দেশ প্রতিদিন
  12. ধর্ম ও জীবন
  13. নারী ও শিশু
  14. প্রতিদিনের কথা
  15. প্রতিদিনের রাশিফল

হাতীবান্ধায় এক নারী জেএমবির সদস্য গ্রেফতার

প্রতিবেদক
admin2022
এপ্রিল ৫, ২০১৮ ৮:৩৬ অপরাহ্ণ

হাতীবান্ধা(লালমনিরহাট) প্রতিনিধি-লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় নিষিদ্ধ সংগঠন জেএমবি‘র সাদিয়া আফরোজ নীনা নামে এক নারী সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে উপজেলার দক্ষিন ধুবনী গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে থানা পুলিশ। সাদিয়া ওই গ্রামের নুরল ইসলামের মেয়ে ও রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান শাখার অনার্স ৪র্থ বর্ষের ছাত্রী বলে নিশ্চিত করেছেন হাতীবান্ধা থানা অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক।

পুলিশ জানায়, লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাসিরুল ইসলামের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাত ১১ টায় দক্ষিন ধুবনী গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে। এসময় লালমনিরহাটের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) হোসেন শহীদ সরওয়ার্দীসহ হাতীবান্ধা থানা পুলিশ ওই অভিযানে অংশ নেন। তাকে গ্রেফাতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাবাসাবাদ শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে হাতীবান্ধা থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সাদিয়া আফরোজ নীনার বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালে বিশেষ ক্ষমতা আইনে (১৫(৩)/১৬(২) ধারায়) মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ জানায়, আটক সাদিয়ার কাছ থেকে পাওয়া তিনটি মোবাইলসেটে মানসিক উত্তেজনা কর ও বিভিন্ন দেশের মুসলিমদের জখমের ছবি, আগ্নেয়অস্ত্র ব্যবহারের ফুটেজ ও বিভিন্ন জঙ্গী নেতাদের ছবি ও তাদের বক্তব্যের ফুটেজ পাওয়া গেছে। সেই সাথে তার মুঠোফোনে টেলিগ্রাম, অরবিট, অরফক্স নামে তিনটি অ্যাপস (ফিচার) আছে। এসব অ্যাপস ব্যবহার করে ওইসব ছবি ও ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে জঙ্গি সদ্যদের উদ্বুদ্ধ করে অভিযুক্ত সাদিয়া আফরোজ নীনা দেশের অভ্যান্তরে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা করে আসছে বলে অভিযোগ পুলিশের। এর পাশাপাশি তাকে গ্রেফতারের সময় সালাফদের ইলমী শ্রেষ্ঠত্ব ইবনে রজব হাম্মুলী (রাঃ) অনুবাদ করা একটি বই উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশের দায়ের করা ওই মামলায় বলা হয়, ২০১৫ সাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) নিজ নামে মোট তিনটি আইডি খোলে সাদিয়া আফরোজ নীনা। এসব ফেসবুক আইডির মাধ্যমে মোহাম্মদ আনাস, মেহেদী হাসান, এমআরএফ ওরফে সোহেলা রানা নামে ১০/১২ জন জঙ্গি সদস্যের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে দেশের অভ্যান্তরে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা করে সাদিয়া আফরোজ নীনা। ওই সদস্যদের নিয়ে গোপন বৈঠক হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে সাদিয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এসময় অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন জঙ্গি সদস্য পালিয়ে যায় বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক বলেন, ‘গ্রেফতারকৃত সাদিয়া আফরোজ নীনা নিষিদ্ধ জেএমবি সংগঠনের সদস্য। তার ব্যবহারিত তিনটি মুঠোফোনে মানসিক উত্তেজনা কর ছবি ও ফুটেজসহ জঙ্গিদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন সংক্রান্ত বিভিন্ন অ্যাপস পাওয়া গেছে।একই কথা বলেন লালমনিরহাটের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) হোসেন শহীদ সরওয়ার্দী। পরে তাকে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়।

সর্বশেষ - ফিচার