হিলিতে পেঁয়াজের ঝাঁজ চরমে, কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা » NewsBijoy24 । Online Newspaper of Bangladesh.
ঢাকা ০৬:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হিলিতে পেঁয়াজের ঝাঁজ চরমে, কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা

পেয়াজ। ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুরের হিলিতে ফের বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ। এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। এক সপ্তাহ আগে সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে, আজ রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) তা-ই বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকায়। ক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের দাম তাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। তাতে অনেকের পক্ষে কেনা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। আর বিক্রেতারা বলছেন, কৃষকেরা কাছে পেঁয়াজ শেষ পর্যায়ে। বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কমে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) হিলি বাজারে পেঁয়াজ ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে আলাপকালে এমন তথ্য জানা গেছে।

হিলি বাজারে কথা হয় পেঁয়াজ কিনতে আসা মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গেলো সপ্তাহে সোমবার (৫ফেব্রুয়ারি ) প্রতিকেজি পেঁয়াজ কিনি ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। আর আজ কিনতে এসে তো চোখ কপালে উঠে গেলো। প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকায়। । তাই ৫০০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনতে এসে দাম বেশির কারণে বাধ্য হয়ে ৩০ টাকা দিয়ে ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনলাম।’

আরেক পেঁয়াজ ক্রেতা মো. বুলু মিয়া বলেন, ‘আমি শ্রমিক। পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন আমার মতো শ্রমিকসহ সাধারণ ক্রেতারা। আমাদের জন্য পেঁয়াজ কেনা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করতে হবে।’

পেঁয়াজ বিক্রেরা শাকিল আহমেদ ঢাকা বলেন , ‘গেলো সপ্তাহে আমরা প্রকারভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কিনে ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি করেছি। কিন্তু এই সপ্তাহে বাজারে সরবরাহ কমে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। এই সপ্তাহে প্রতিকেজি পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে প্রকারভেদে ১০০ থেকে ১০৫ টাকায় কিনতে হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে বিক্রি করছি ১১০ থেকে ১২০ টাকায়।’

শাকিল আহমেদ আরও বলেন, ‘ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি না হলে দাম কমার কোনো সম্ভবনা আছে বলে মনে হচ্ছে না।’

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ

দিঘলিয়ায় পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে সংঘাতে আহত ৫

Advertisement

হিলিতে পেঁয়াজের ঝাঁজ চরমে, কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা

প্রকাশিত সময় :- ১১:৪৯:৫০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

দিনাজপুরের হিলিতে ফের বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ। এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। এক সপ্তাহ আগে সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে, আজ রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) তা-ই বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকায়। ক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের দাম তাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। তাতে অনেকের পক্ষে কেনা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। আর বিক্রেতারা বলছেন, কৃষকেরা কাছে পেঁয়াজ শেষ পর্যায়ে। বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কমে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) হিলি বাজারে পেঁয়াজ ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে আলাপকালে এমন তথ্য জানা গেছে।

হিলি বাজারে কথা হয় পেঁয়াজ কিনতে আসা মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গেলো সপ্তাহে সোমবার (৫ফেব্রুয়ারি ) প্রতিকেজি পেঁয়াজ কিনি ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। আর আজ কিনতে এসে তো চোখ কপালে উঠে গেলো। প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকায়। । তাই ৫০০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনতে এসে দাম বেশির কারণে বাধ্য হয়ে ৩০ টাকা দিয়ে ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনলাম।’

আরেক পেঁয়াজ ক্রেতা মো. বুলু মিয়া বলেন, ‘আমি শ্রমিক। পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন আমার মতো শ্রমিকসহ সাধারণ ক্রেতারা। আমাদের জন্য পেঁয়াজ কেনা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করতে হবে।’

পেঁয়াজ বিক্রেরা শাকিল আহমেদ ঢাকা বলেন , ‘গেলো সপ্তাহে আমরা প্রকারভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কিনে ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি করেছি। কিন্তু এই সপ্তাহে বাজারে সরবরাহ কমে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। এই সপ্তাহে প্রতিকেজি পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে প্রকারভেদে ১০০ থেকে ১০৫ টাকায় কিনতে হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে বিক্রি করছি ১১০ থেকে ১২০ টাকায়।’

শাকিল আহমেদ আরও বলেন, ‘ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি না হলে দাম কমার কোনো সম্ভবনা আছে বলে মনে হচ্ছে না।’

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন