ঢাকা ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৪ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

https://www.newsbijoy24.com/category/dengue-update/

শেখ হাসিনার রংপুর আগমনে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের স্বপ্ন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২ আগষ্ঠ দলীয় সফরে রংপুরে আসছেন।তাঁর আগমনকে কেন্দ্র করে উত্তরাঞ্চলে সাজ সাজ রব দেখা যাচ্ছে। জনসভায় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিত করার জন্য গ্রাম মহল্লায় সভা করছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। টার্গেট জনসভাকে জনসমুদ্রে রুপ দেয়া।আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার আগমনে তিস্তা পাড়ের মানুষজন তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের স্বপ্ন দেখছেন। রংপুরের জনসভায় তিস্তা মহাপরিকল্পনার চমকপ্রদ ঘোষনা আসবে বলে আশা জাগছে তিস্তার কোল বেস্টিত ৪ জেলার মানুষজনের।
তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে কৃষি অগ্রগতি, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার, তিস্তা নদীর খনন ও ভাংগন রোধ, মাছ চাষ ও পর্যটন কেন্দ্রে রূপ নিবে এ এলাকা।এতে ৭ হতে ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।
জানাগেছে, তিস্তা প্রকল্পে পূর্ব চীনের জিয়াংসু প্রদেশের সুকিয়ান সিটির আদলে তিস্তার দুইপাড়ে পরিকল্পিত স্যাটেলাইট শহর, নদী খনন ও শাসন, ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্যবস্থা, আধুনিক কৃষি সেচ ব্যবস্থা, মাছ চাষ ও পর্যটন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। তিস্তা রিভার কমপ্রিহেনসিভ ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রেস্টোরেশন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। তিস্তা নদীর পাড়ের লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, রংপুর ও গাইবান্ধায় চায়নার প্রতিনিধিদল কাজ করে গেছেন। এ প্রকল্পের আওতায় তিস্তানদীর দুইপাড়ে ২২০ কিলোমিটার গাইডবাঁধ নির্মাণ করা হবো। বাঁধের দুইপাশে থাকবে সমুদ্র সৈকতের মতো মেরিন ড্রাইভ।যাতে পর্যটকরা লং ড্রাইভে যেতে পারেন।এছাড়াও এ রাস্তা দিয়ে পণ্য পরিবহন করা হবে।হোটেল- মোটেল, রেস্টুরেন্ট ও পর্যটন নগরী।টাউন নামের আধুনিক পরিকল্পিত শহর, নগর ও বন্দর গড়ে তোলা হবে।তিস্তাপাড় হয়ে উঠবে পূর্ব চীনের জিয়াংসু প্রদেশের সুকিয়ান সিটির মত সুন্দর নগরী।
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তাকোল ঘেঁসা গড্ডিমারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল বলেন, লালমনিরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও হাতীবান্ধা- পাটগ্রাম এলাকার মাটিও মানুষের নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন এ এলাকার সমস্যা, সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এখানকার মানুষের প্রাণের দাবী তিস্তা মহাপরিকল্পনা নিয়ে তাঁর বক্তব্যে তুলে ধরবেন বলে আশা করছি। এছাড়া পদ্মা সেতুর মতো নিজ অর্থায়নে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের ঘোষনা দিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবুল আলম সাদাতও একই অভিমত ব্যক্ত করেন।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নামাজের সময়সূচি: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

https://i0.wp.com/www.bd-pratidin.com/assets/newDesktop/sp-img/dengu-desktop.gif?ssl=1

শেখ হাসিনার রংপুর আগমনে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের স্বপ্ন

প্রকাশিত সময় :- ১২:০৮:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুলাই ২০২৩

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২ আগষ্ঠ দলীয় সফরে রংপুরে আসছেন।তাঁর আগমনকে কেন্দ্র করে উত্তরাঞ্চলে সাজ সাজ রব দেখা যাচ্ছে। জনসভায় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিত করার জন্য গ্রাম মহল্লায় সভা করছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। টার্গেট জনসভাকে জনসমুদ্রে রুপ দেয়া।আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার আগমনে তিস্তা পাড়ের মানুষজন তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের স্বপ্ন দেখছেন। রংপুরের জনসভায় তিস্তা মহাপরিকল্পনার চমকপ্রদ ঘোষনা আসবে বলে আশা জাগছে তিস্তার কোল বেস্টিত ৪ জেলার মানুষজনের।
তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে কৃষি অগ্রগতি, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার, তিস্তা নদীর খনন ও ভাংগন রোধ, মাছ চাষ ও পর্যটন কেন্দ্রে রূপ নিবে এ এলাকা।এতে ৭ হতে ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।
জানাগেছে, তিস্তা প্রকল্পে পূর্ব চীনের জিয়াংসু প্রদেশের সুকিয়ান সিটির আদলে তিস্তার দুইপাড়ে পরিকল্পিত স্যাটেলাইট শহর, নদী খনন ও শাসন, ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্যবস্থা, আধুনিক কৃষি সেচ ব্যবস্থা, মাছ চাষ ও পর্যটন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। তিস্তা রিভার কমপ্রিহেনসিভ ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রেস্টোরেশন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। তিস্তা নদীর পাড়ের লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, রংপুর ও গাইবান্ধায় চায়নার প্রতিনিধিদল কাজ করে গেছেন। এ প্রকল্পের আওতায় তিস্তানদীর দুইপাড়ে ২২০ কিলোমিটার গাইডবাঁধ নির্মাণ করা হবো। বাঁধের দুইপাশে থাকবে সমুদ্র সৈকতের মতো মেরিন ড্রাইভ।যাতে পর্যটকরা লং ড্রাইভে যেতে পারেন।এছাড়াও এ রাস্তা দিয়ে পণ্য পরিবহন করা হবে।হোটেল- মোটেল, রেস্টুরেন্ট ও পর্যটন নগরী।টাউন নামের আধুনিক পরিকল্পিত শহর, নগর ও বন্দর গড়ে তোলা হবে।তিস্তাপাড় হয়ে উঠবে পূর্ব চীনের জিয়াংসু প্রদেশের সুকিয়ান সিটির মত সুন্দর নগরী।
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তাকোল ঘেঁসা গড্ডিমারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল বলেন, লালমনিরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও হাতীবান্ধা- পাটগ্রাম এলাকার মাটিও মানুষের নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন এ এলাকার সমস্যা, সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এখানকার মানুষের প্রাণের দাবী তিস্তা মহাপরিকল্পনা নিয়ে তাঁর বক্তব্যে তুলে ধরবেন বলে আশা করছি। এছাড়া পদ্মা সেতুর মতো নিজ অর্থায়নে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের ঘোষনা দিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবুল আলম সাদাতও একই অভিমত ব্যক্ত করেন।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন