ঢাকা ০২:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রপতির আদেশে গুচ্ছে ফিরলো ইবি

  • নিউজ বিজয় ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ০৯:৪১:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩২৯ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

আগামী ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষেও স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় গুচ্ছ পদ্ধতিতে অংশ নিচ্ছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। ফলে স্বতন্ত্র ব্যবস্থাপনার ভর্তি প্রক্রিয়া সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন ভর্তি কমিটির সিন্ধান্ত মোতাবেক প্রত্যাহার করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।
সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম গণমাধ্যমকে এসকল তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শনিবার (১৫ এপ্রিল) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. মাহমুদুল আলম সাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিগত সময় যেসব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ ভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়েছিলো, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষেও তারা একইভাবেই ভর্তির কার্যক্রম সম্পন্ন করবে। এ বিষয়ে ইউজিসিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্যের ইচ্ছা অনুযায়ী এটি করা হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

এরই প্রেক্ষিতে গতকাল রোববার বিকেল ৫ টায় ইবির কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে অবহিত করা হয় বলে সভা সূত্রে জানা যায়।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেট সদস্যদের সর্বসম্মতি ক্রমে গুচ্ছে না যাওয়ার সিন্ধান্ত হয়েছিল। তবে মহামান্য রাষ্ট্রপতির প্রজ্ঞাপন এলে সেখানে আর কিছু করার থাকে না, তা বাস্তবায়ন আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক হয়ে যায়। আসলে রাষ্ট্রপতির আদেশের বাইরে গিয়ে কোনো প্রশাসনের পক্ষেই পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না।

তাই সমস্ত ডিনদের সাথে কথা বলেছি এবং ভর্তি কমিটির জরুরি মিটিং ডেকেছিলাম। সেখানে গুচ্ছের বাইরে গিয়ে যে প্রজ্ঞাপন দেয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার করার পাশাপাশি গুচ্ছ যেনো ভোগান্তিহীন হয় এবং আগামীতে যেনো সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে সে বিষয়ে বলেছি।

বর্তমানে ঈদের ছুটি চলমান তাই ছুটির পরে দ্রুত সময়ের মধ্যে একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিং ডেকে সকল শিক্ষকদের অবহিত করা হবে। যাতে তারা অসম্মানিত বোধ না করেন এবং গুচ্ছে সবাই যে যার দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করে।

এবিষয়ে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. তপন কুমার জোদ্দার বলেন, রাষ্ট্রপতির আদেশের বাইরে যাবার সুযোগ নেই৷ আমারা তার আদেশ মানতে বাধ্য। ঈদের পরে শিক্ষক সমিতির সভা ডেকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব৷ সেখানে আমরা পরবর্তী করনীয় নির্ধারণ করবো।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

আদিতমারীতে স্ত্রীকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ-স্বামী আটক

রাষ্ট্রপতির আদেশে গুচ্ছে ফিরলো ইবি

প্রকাশিত সময় :- ০৯:৪১:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩

আগামী ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষেও স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় গুচ্ছ পদ্ধতিতে অংশ নিচ্ছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। ফলে স্বতন্ত্র ব্যবস্থাপনার ভর্তি প্রক্রিয়া সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন ভর্তি কমিটির সিন্ধান্ত মোতাবেক প্রত্যাহার করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।
সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম গণমাধ্যমকে এসকল তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শনিবার (১৫ এপ্রিল) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. মাহমুদুল আলম সাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিগত সময় যেসব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ ভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়েছিলো, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষেও তারা একইভাবেই ভর্তির কার্যক্রম সম্পন্ন করবে। এ বিষয়ে ইউজিসিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্যের ইচ্ছা অনুযায়ী এটি করা হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

এরই প্রেক্ষিতে গতকাল রোববার বিকেল ৫ টায় ইবির কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে অবহিত করা হয় বলে সভা সূত্রে জানা যায়।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেট সদস্যদের সর্বসম্মতি ক্রমে গুচ্ছে না যাওয়ার সিন্ধান্ত হয়েছিল। তবে মহামান্য রাষ্ট্রপতির প্রজ্ঞাপন এলে সেখানে আর কিছু করার থাকে না, তা বাস্তবায়ন আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক হয়ে যায়। আসলে রাষ্ট্রপতির আদেশের বাইরে গিয়ে কোনো প্রশাসনের পক্ষেই পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না।

তাই সমস্ত ডিনদের সাথে কথা বলেছি এবং ভর্তি কমিটির জরুরি মিটিং ডেকেছিলাম। সেখানে গুচ্ছের বাইরে গিয়ে যে প্রজ্ঞাপন দেয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার করার পাশাপাশি গুচ্ছ যেনো ভোগান্তিহীন হয় এবং আগামীতে যেনো সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে সে বিষয়ে বলেছি।

বর্তমানে ঈদের ছুটি চলমান তাই ছুটির পরে দ্রুত সময়ের মধ্যে একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিং ডেকে সকল শিক্ষকদের অবহিত করা হবে। যাতে তারা অসম্মানিত বোধ না করেন এবং গুচ্ছে সবাই যে যার দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করে।

এবিষয়ে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. তপন কুমার জোদ্দার বলেন, রাষ্ট্রপতির আদেশের বাইরে যাবার সুযোগ নেই৷ আমারা তার আদেশ মানতে বাধ্য। ঈদের পরে শিক্ষক সমিতির সভা ডেকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব৷ সেখানে আমরা পরবর্তী করনীয় নির্ধারণ করবো।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন