ঢাকা ০২:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মন্ত্রণালয়ের অডিট কর্মকর্তা পরিচয়ে টাকা আদায়, পালানোর সময় দুই ব্যক্তি আটক

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অডিট কর্মকর্তার পরিচয় নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসায় গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা আদায় করে পালানোর সময় দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকেলে তাঁদের উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের জবাবীপুর বাজার থেকে উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীরা আটক করেন। সন্ধ্যায় তাঁদের বদলগাছী থানা– পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।
আটকৃত ওই দুই ব্যক্তি হলেন, বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার ভান্ডারীকাঠি গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে রেজাউল ইসলাম (৩০) ও মাদারীপুর রাজৈর উপজেলার আম গ্রামের মৃত অনীল চন্দ্রের ছেলে অবির ঘোষ (২৮)। এ ঘটনায় উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রুকনুজ্জামান বাদী হয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে একটি সিএনজি নিয়ে উপজেলার বালুভরা ইউনিয়নের হযরতপুর নূরানী হাফেজিয়া মাদ্রাসায় যান রেজাউল ইসলাম ও অবির ঘোষ। তারা নিজেদের ঢাকা সমাজকল্যান মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো অডিট কর্মকর্তার পরিচয় দেন। সেখান থেকে দুই হাজার টাকাও নেন। এরপর পালশা আকতার সিদ্দিকী আফেজিয়া মাদ্রাসায় গিয়ে এক হাজার টাকা, বালুভরা মহির উদ্দীন বেসরকারি শিশুসদন থেকে এক হাজার টাকা এবং আধাইপুর ইউনিয়নের দেউলিয়া দারুল এহসান হাফেজিয়া মাদ্রাসা থেকে পাঁচ হাজার টাকা নেন।
পরে উপজেলা কদমগাছী এবং কাদিমপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা অডিট করতে গেলে তাদের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ হয়। এ সময় তাঁরা সিএনজি যোগে পালানোর চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে সমাজসেবা অফিসের দুই কর্মচারী ফিরোজ হোসেন ও রজত গোস্বামী তাদের জাবারীপুর বাজার থেকে আটক করে অফিসে নিয়ে আসেন।
দেউলিয়া দারুল এহসান হাফেজিয়া মাদ্রাসার কমিটির সদস্য আ. মতিন বলেন, ওই দুই যুবক সকালে শিশু সদনে গিয়ে নিজেদের পরিচয় দেয় মন্ত্রণালয় থেকে তাঁরা অডিট করার জন্য এসেছে। এরপর তাদের সবকিছু ঘুরে দেখানো হয়। শিশু সদন থেকে যাওয়ার আগে তারা খরচ বাবদ ১০ হাজার টাকা দাবি করেন। তবে কিছু কম দিলে হবে বলে জানান। পরে তাদের ৫ হাজার টাকা দেওয়া হয়। টাকা দিলে তারা তড়িঘড়ি করে চলে যান।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে আটক রেজাউল ইসলাম নিজেকে বাংলাদেশ আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশনের (বাসক) সদস্য বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, এতিমখানা ও মাদ্রাসাগুলো পরিদর্শনে অফিস আমাদের অডিটের জন্য পাঠিয়েছে। তাদের কাছ থেকে টাকা আমি নিয়েছি। কিন্তু টাকা নেওয়া আসলে ঠিক হয়নি। এখানে আসার উদ্দেশ্য ছিল প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শন করে একটা প্রতিবেদন তৈরি করা। যা আমাদের সংস্থার মাধ্যমে প্রতিবেদনগুলো প্রকাশ করা হবে। এছাড়া উপজেলা অফিসেও বিষয়টি না জানানো আমাদের ভুল হয়েছে।
উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত) মো. রোকুনুজ্জামান বলেন, বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসা থেকে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আদায় করে পালিয়ে যাওয়ার সময় দুজনকে আটক করেছি। মামলা দিয়ে তাঁদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।’
বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রাতে বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। দুই আসামীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নামাজের সময়সূচি: ২৮ মে ২০২৪

মন্ত্রণালয়ের অডিট কর্মকর্তা পরিচয়ে টাকা আদায়, পালানোর সময় দুই ব্যক্তি আটক

প্রকাশিত সময় :- ০৫:৫৯:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ মে ২০২২

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অডিট কর্মকর্তার পরিচয় নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসায় গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা আদায় করে পালানোর সময় দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকেলে তাঁদের উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের জবাবীপুর বাজার থেকে উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীরা আটক করেন। সন্ধ্যায় তাঁদের বদলগাছী থানা– পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।
আটকৃত ওই দুই ব্যক্তি হলেন, বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার ভান্ডারীকাঠি গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে রেজাউল ইসলাম (৩০) ও মাদারীপুর রাজৈর উপজেলার আম গ্রামের মৃত অনীল চন্দ্রের ছেলে অবির ঘোষ (২৮)। এ ঘটনায় উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রুকনুজ্জামান বাদী হয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে একটি সিএনজি নিয়ে উপজেলার বালুভরা ইউনিয়নের হযরতপুর নূরানী হাফেজিয়া মাদ্রাসায় যান রেজাউল ইসলাম ও অবির ঘোষ। তারা নিজেদের ঢাকা সমাজকল্যান মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো অডিট কর্মকর্তার পরিচয় দেন। সেখান থেকে দুই হাজার টাকাও নেন। এরপর পালশা আকতার সিদ্দিকী আফেজিয়া মাদ্রাসায় গিয়ে এক হাজার টাকা, বালুভরা মহির উদ্দীন বেসরকারি শিশুসদন থেকে এক হাজার টাকা এবং আধাইপুর ইউনিয়নের দেউলিয়া দারুল এহসান হাফেজিয়া মাদ্রাসা থেকে পাঁচ হাজার টাকা নেন।
পরে উপজেলা কদমগাছী এবং কাদিমপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা অডিট করতে গেলে তাদের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ হয়। এ সময় তাঁরা সিএনজি যোগে পালানোর চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে সমাজসেবা অফিসের দুই কর্মচারী ফিরোজ হোসেন ও রজত গোস্বামী তাদের জাবারীপুর বাজার থেকে আটক করে অফিসে নিয়ে আসেন।
দেউলিয়া দারুল এহসান হাফেজিয়া মাদ্রাসার কমিটির সদস্য আ. মতিন বলেন, ওই দুই যুবক সকালে শিশু সদনে গিয়ে নিজেদের পরিচয় দেয় মন্ত্রণালয় থেকে তাঁরা অডিট করার জন্য এসেছে। এরপর তাদের সবকিছু ঘুরে দেখানো হয়। শিশু সদন থেকে যাওয়ার আগে তারা খরচ বাবদ ১০ হাজার টাকা দাবি করেন। তবে কিছু কম দিলে হবে বলে জানান। পরে তাদের ৫ হাজার টাকা দেওয়া হয়। টাকা দিলে তারা তড়িঘড়ি করে চলে যান।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে আটক রেজাউল ইসলাম নিজেকে বাংলাদেশ আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশনের (বাসক) সদস্য বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, এতিমখানা ও মাদ্রাসাগুলো পরিদর্শনে অফিস আমাদের অডিটের জন্য পাঠিয়েছে। তাদের কাছ থেকে টাকা আমি নিয়েছি। কিন্তু টাকা নেওয়া আসলে ঠিক হয়নি। এখানে আসার উদ্দেশ্য ছিল প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শন করে একটা প্রতিবেদন তৈরি করা। যা আমাদের সংস্থার মাধ্যমে প্রতিবেদনগুলো প্রকাশ করা হবে। এছাড়া উপজেলা অফিসেও বিষয়টি না জানানো আমাদের ভুল হয়েছে।
উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত) মো. রোকুনুজ্জামান বলেন, বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসা থেকে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আদায় করে পালিয়ে যাওয়ার সময় দুজনকে আটক করেছি। মামলা দিয়ে তাঁদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।’
বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রাতে বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। দুই আসামীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।