ঢাকা ১১:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মোবারক

ভারতের কানপুরে তীব্র শীতে ৯৮ জনের মৃত্যু

  • নিউজ বিজয় ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ০৮:০৩:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৩
  • ২৭০ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

তীব্র শীতে জবুথবু ভারতের উত্তরাঞ্চলসহ দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে। তীব্র শৈত্যপ্রবাহ চলছে দিল্লি, পাঞ্জাব-সহ উত্তর পশ্চিম ভারতে। ঠান্ডায় ঠকঠক করে কাঁপছেন সেই রাজ্যগুলোরর বাসিন্দার। এমনকি, প্রাণ কাড়তেও শুরু করেছে এই শীত। গত পাঁচ দিনে ঠান্ডায় হৃদ্‌রোগ এবং স্ট্রোকের কারণে শুধু উত্তরপ্রদেশের কানপুরেই মারা গেছেন ৯৮ জন। তাদের মধ্যে ৪৪ জন হাসপাতালে মারা যান এবং ৫৪ জন মারা গেছেন চিকিৎসা না পেয়ে।

কানপুরের এক বেসরকারি হাসপাতাল এই পরিসংখ্যান দিয়েছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের জরুরি ও বহির্বিভাগে ভর্তি হন মোট ৭২৩ জন ।

পরিসংখ্যানে আরও উল্লেখ রয়েছে, হাসপাতালে প্রচণ্ড ঠান্ডায় হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার ১৪ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ছয়জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গিয়েছেন। আট জনকে হাসপাতালে আনা হয় মৃত অবস্থাতেই। ওই হাসপাতালটিতে মোট ৬০৪ জন হৃদ্‌রোগ আক্রান্ত হয়ে ভর্তি রয়েছেন বলে জানিয়েছে কতৃপক্ষ।

এদিকে নয়ডার যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে কুয়াশার জন্য কম দৃশ্যমানতা কারণে পথদুর্ঘটনার কবলে পড়ে দুই নাবালক সহ আটজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহ থেকে রাজধানী দিল্লি-সহ গোটা উত্তর ভারত জুড়ে শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। এরমধ্যেই গত কয়েক বছরের মধ্যে এবারই ছিল শীতলতম দিন দেখেছে দিল্লিবাসী। রোববার দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এইসঙ্গে ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত সাধারণ জনজীবন। সামান্য দূরের জিনিসও দেখা যাচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে সরকার আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত দিল্লির সব স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে দৃশ্যমানতার সমস্যায় ট্রেন, বাস, বিমান পরিষেবা ব্যাহত হচ্ছে। সোমবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত কোনো উড়োজাহাজ ছাড়েনি। এছাড়া কুয়াশা বেশি থাকার কারণে দেরিতে ছেড়েছে ৪২টি ট্রেন। এই অবস্থায় দিল্লি-সহ উত্তর ভারতের বেশকিছু জায়গায় কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, গত সপ্তাহ থেকে দিল্লি, পাঞ্জাব, চণ্ডীগড়, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশের কিছু অংশে তাপমাত্রা তিন থেকে ছয় ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে।

অন্যদিকে সবচেয়ে অস্বাভাবিক ঠান্ডা পড়েছে রাজস্থানে। রাজস্থানের বেশকিছু জায়গায় হিমাঙ্কের নিচে পৌঁছায় তাপমাত্রা। রাজস্থানের সবচেয়ে উঁচু পাহাড়ি এলাকা মাউন্ট আবুতে বরফ পড়েছে। থর মরুভূমির প্রবেশপথ বলে পরিচিত চুরুতে তামমান এখন শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

১৫০ উপজেলায় প্রতীক বরাদ্দ আজ

ভারতের কানপুরে তীব্র শীতে ৯৮ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত সময় :- ০৮:০৩:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৩

তীব্র শীতে জবুথবু ভারতের উত্তরাঞ্চলসহ দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে। তীব্র শৈত্যপ্রবাহ চলছে দিল্লি, পাঞ্জাব-সহ উত্তর পশ্চিম ভারতে। ঠান্ডায় ঠকঠক করে কাঁপছেন সেই রাজ্যগুলোরর বাসিন্দার। এমনকি, প্রাণ কাড়তেও শুরু করেছে এই শীত। গত পাঁচ দিনে ঠান্ডায় হৃদ্‌রোগ এবং স্ট্রোকের কারণে শুধু উত্তরপ্রদেশের কানপুরেই মারা গেছেন ৯৮ জন। তাদের মধ্যে ৪৪ জন হাসপাতালে মারা যান এবং ৫৪ জন মারা গেছেন চিকিৎসা না পেয়ে।

কানপুরের এক বেসরকারি হাসপাতাল এই পরিসংখ্যান দিয়েছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের জরুরি ও বহির্বিভাগে ভর্তি হন মোট ৭২৩ জন ।

পরিসংখ্যানে আরও উল্লেখ রয়েছে, হাসপাতালে প্রচণ্ড ঠান্ডায় হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার ১৪ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ছয়জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গিয়েছেন। আট জনকে হাসপাতালে আনা হয় মৃত অবস্থাতেই। ওই হাসপাতালটিতে মোট ৬০৪ জন হৃদ্‌রোগ আক্রান্ত হয়ে ভর্তি রয়েছেন বলে জানিয়েছে কতৃপক্ষ।

এদিকে নয়ডার যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে কুয়াশার জন্য কম দৃশ্যমানতা কারণে পথদুর্ঘটনার কবলে পড়ে দুই নাবালক সহ আটজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহ থেকে রাজধানী দিল্লি-সহ গোটা উত্তর ভারত জুড়ে শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। এরমধ্যেই গত কয়েক বছরের মধ্যে এবারই ছিল শীতলতম দিন দেখেছে দিল্লিবাসী। রোববার দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এইসঙ্গে ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত সাধারণ জনজীবন। সামান্য দূরের জিনিসও দেখা যাচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে সরকার আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত দিল্লির সব স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে দৃশ্যমানতার সমস্যায় ট্রেন, বাস, বিমান পরিষেবা ব্যাহত হচ্ছে। সোমবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত কোনো উড়োজাহাজ ছাড়েনি। এছাড়া কুয়াশা বেশি থাকার কারণে দেরিতে ছেড়েছে ৪২টি ট্রেন। এই অবস্থায় দিল্লি-সহ উত্তর ভারতের বেশকিছু জায়গায় কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, গত সপ্তাহ থেকে দিল্লি, পাঞ্জাব, চণ্ডীগড়, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশের কিছু অংশে তাপমাত্রা তিন থেকে ছয় ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে।

অন্যদিকে সবচেয়ে অস্বাভাবিক ঠান্ডা পড়েছে রাজস্থানে। রাজস্থানের বেশকিছু জায়গায় হিমাঙ্কের নিচে পৌঁছায় তাপমাত্রা। রাজস্থানের সবচেয়ে উঁচু পাহাড়ি এলাকা মাউন্ট আবুতে বরফ পড়েছে। থর মরুভূমির প্রবেশপথ বলে পরিচিত চুরুতে তামমান এখন শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন