ঢাকা ০১:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বুড়িমারী স্থলবন্দর ৫ দিন ধরে অচল, খালাস হচ্ছে না ভারতীয় পণ্য

  • লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি :-
  • প্রকাশিত সময় :- ০৫:২২:২৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ২৭৪ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষের কারণে লালমনিরহাটের পাটগ্রামের বুড়িমারী স্থলবন্দর অচল অবস্থা। পাঁচ দিন ধরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ। ভারত থেকে মালামাল এলেও খালাস হচ্ছে না। ফলে খালাসের অপেক্ষায় কয়েকদিন ধরে পড়ে আছে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বুড়িমারী স্থলবন্দরে গিয়ে দেখা যায়, আমদানি রপ্তানি বন্ধ। ভারত থেকে পণ্য নিয়ে আসা কয়েকশ ট্রাক খালাসের অপেক্ষায়। ফলে স্থলবন্দরের ইয়ার্ড এবং মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

শ্রমিকদের দাবি, মজুরির টাকা সর্দারের মাধ্যমে দিলে নেবেন না তারা। সরাসরি লেবার হ্যান্ডেলিং ঠিকাদার বা প্রতিনিধির মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। তা না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য লোড-আনলোড কাজ বন্ধ থাকবে।

স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ বুড়িমারী স্থলবন্দর শাখার সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন মিডিয়াকে বলেন, সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকরা ট্রাক থেকে পণ্য খালাস করবেন না। এ নিয়ে বৈঠক হলেও এখন পর্যন্ত সমাধান হয়নি।

বুড়িমারী স্থলবন্দর ৫ দিন ধরে অচল, খালাস হচ্ছে না ভারতীয় পণ্য

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শ্রমিকদের মজুরির টাকা না দেওয়া ও সাধারণ শ্রমিকদেরকে কাজের সিরিয়াল দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শ্রমিক ও সর্দার গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে শ্রমিকদের হামলায় দুই সাংবাদিকসহ ১৫ জন আহত হন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুল ইসলামকে প্রায় ছয় ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় শ্রমিক অসন্তোষ ও স্থলবন্দরের কার্যক্রমে ব্যাঘাতের ঘটনায় শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এর আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুর রহমান।

অন্য সদস্যরা হলেন- লালমনিরহাট সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) ফরহাদ ইমরুল কায়েস, পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ, বুড়িমারী স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) গিয়াস উদ্দিন।

রোববার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৮টা পর্যন্ত সাধারণ শ্রমিকদের ১০ জনের প্রতিনিধি দল ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছায়েদুজ্জামান সায়েদকে নিয়ে বৈঠক করেন। শ্রমিকদের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ বুড়িমারী স্থলবন্দর শাখার সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন।

বৈঠক সূত্র জানা গেছে, সমস্যা নিরসনে সর্দার কুজিওমিনের পক্ষ, ঠিকাদার ও শ্রমিকপক্ষের মাধ্যমে লোড-আনলোড, মজুরি পরিশোধের কাজ করার প্রস্তাব করা হলে শ্রমিকরা রাজি হননি। ফলে সুরাহা ছাড়াই বৈঠক শেষ হয়।

পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুল ইসলাম মিডিয়াকে বলেন, রোববার সন্ধ্যায় গঠিত কমিটি, শ্রমিক ও সর্দার প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক হয়েছে। তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক নোট করে নিয়ে গেছেন। এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এলে আমরা সেভাবে ব্যবস্থা নেবো।

বুড়িমারী স্থলবন্দরের কাস্টমস ডেপুটি কমিশনার আব্দুল আলিম বলেন, শ্রমিক অসন্তোষ চলছে। ফলে রোববার ভারত থেকে ১১টি ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করলেও আজ একেবারেই বন্ধ। বিষয়টি সমাধানের জন্য জেলা প্রশাসক ও ইউএনও কাজ করছেন। আশা করি দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

আদিতমারীতে স্ত্রীকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ-স্বামী আটক

বুড়িমারী স্থলবন্দর ৫ দিন ধরে অচল, খালাস হচ্ছে না ভারতীয় পণ্য

প্রকাশিত সময় :- ০৫:২২:২৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষের কারণে লালমনিরহাটের পাটগ্রামের বুড়িমারী স্থলবন্দর অচল অবস্থা। পাঁচ দিন ধরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ। ভারত থেকে মালামাল এলেও খালাস হচ্ছে না। ফলে খালাসের অপেক্ষায় কয়েকদিন ধরে পড়ে আছে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বুড়িমারী স্থলবন্দরে গিয়ে দেখা যায়, আমদানি রপ্তানি বন্ধ। ভারত থেকে পণ্য নিয়ে আসা কয়েকশ ট্রাক খালাসের অপেক্ষায়। ফলে স্থলবন্দরের ইয়ার্ড এবং মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

শ্রমিকদের দাবি, মজুরির টাকা সর্দারের মাধ্যমে দিলে নেবেন না তারা। সরাসরি লেবার হ্যান্ডেলিং ঠিকাদার বা প্রতিনিধির মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। তা না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য লোড-আনলোড কাজ বন্ধ থাকবে।

স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ বুড়িমারী স্থলবন্দর শাখার সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন মিডিয়াকে বলেন, সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকরা ট্রাক থেকে পণ্য খালাস করবেন না। এ নিয়ে বৈঠক হলেও এখন পর্যন্ত সমাধান হয়নি।

বুড়িমারী স্থলবন্দর ৫ দিন ধরে অচল, খালাস হচ্ছে না ভারতীয় পণ্য

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শ্রমিকদের মজুরির টাকা না দেওয়া ও সাধারণ শ্রমিকদেরকে কাজের সিরিয়াল দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শ্রমিক ও সর্দার গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে শ্রমিকদের হামলায় দুই সাংবাদিকসহ ১৫ জন আহত হন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুল ইসলামকে প্রায় ছয় ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় শ্রমিক অসন্তোষ ও স্থলবন্দরের কার্যক্রমে ব্যাঘাতের ঘটনায় শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এর আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুর রহমান।

অন্য সদস্যরা হলেন- লালমনিরহাট সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) ফরহাদ ইমরুল কায়েস, পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ, বুড়িমারী স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) গিয়াস উদ্দিন।

রোববার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৮টা পর্যন্ত সাধারণ শ্রমিকদের ১০ জনের প্রতিনিধি দল ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছায়েদুজ্জামান সায়েদকে নিয়ে বৈঠক করেন। শ্রমিকদের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ বুড়িমারী স্থলবন্দর শাখার সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন।

বৈঠক সূত্র জানা গেছে, সমস্যা নিরসনে সর্দার কুজিওমিনের পক্ষ, ঠিকাদার ও শ্রমিকপক্ষের মাধ্যমে লোড-আনলোড, মজুরি পরিশোধের কাজ করার প্রস্তাব করা হলে শ্রমিকরা রাজি হননি। ফলে সুরাহা ছাড়াই বৈঠক শেষ হয়।

পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুল ইসলাম মিডিয়াকে বলেন, রোববার সন্ধ্যায় গঠিত কমিটি, শ্রমিক ও সর্দার প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক হয়েছে। তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক নোট করে নিয়ে গেছেন। এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এলে আমরা সেভাবে ব্যবস্থা নেবো।

বুড়িমারী স্থলবন্দরের কাস্টমস ডেপুটি কমিশনার আব্দুল আলিম বলেন, শ্রমিক অসন্তোষ চলছে। ফলে রোববার ভারত থেকে ১১টি ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করলেও আজ একেবারেই বন্ধ। বিষয়টি সমাধানের জন্য জেলা প্রশাসক ও ইউএনও কাজ করছেন। আশা করি দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন