ঢাকা ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মোবারক

বিয়ের অনুষ্ঠানে মদপানে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু

  • নিউজ বিজয় ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ১২:০৯:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪
  • ৪৩৫ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

বিয়ের অনুষ্ঠানে মদপানে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায় বিয়ের অনুষ্ঠানে দেশীয় মদপানে অসুস্থ হয়ে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু হয়েছে।
শনিবার রাতে মুন্নু মেডিকেল কলেজে দীপু সরকার (২৯) ও মানিকগঞ্জ কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রসেনজিৎ সরকার (২১) নামে ওই দুই যুবক মারা যান বলে স্থানীয়দের বরাতে হরিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মজিবুর রহমান জানান।

দীপু গাজীপুর জেলার ভাওয়াল কলেজ এলাকার সতীশ সরকারের ছেলে এবং প্রসেনজিৎ হরিরামপুর উপজেলার বয়ড়া ইউনিয়নের দাসকান্দি বয়ড়া গ্রামের মৃত প্রকাশ সরকারের ছেলে। দীপুর বড় বোনের ছেলে প্রসেনজিৎ। প্রসেনজিতের মা ও বাবা নেই।

স্থানীয়রা জানান, সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামে মামাতো বোনের বিয়েতে আসেন দীপু সরকার। শুক্রবার মধ্যরাতে সেখানে গায়েহলুদের অনুষ্ঠানে মদপান করে কয়েকজন যুবক। শনিবার সকালের দিকে অসুস্থ হয়ে পড়েন দীপু ও প্রসেনজিৎ। পরে শনিবার সন্ধ্যায় প্রসেনজিতকে হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে অবস্থা গুরুতর থাকায় কর্তব্যরত চিকিৎসক মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন। পরে মানিকগঞ্জ কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রসেনজিতের মৃত্যু হয়। এদিকে দীপু সরকারকে মানিকগঞ্জ মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

দীপুর মামাতো ভাই সঞ্জয় বৈরাগী জানান, তার বোনের বিয়ে উপলক্ষে তাদের বাড়িতে গায়েহলুদে শুক্রবার মধ্যরাতে কয়েকজন মিলে তরল কিছু (মদ) খেলে ৬-৭ জন অসুস্থ হয়ে পড়ে। দীপু ও তার ভাগ্নে প্রসেনজিতও শনিবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার রাশেদা নাজনীন বলেন, শনিবার প্রসেনজিতকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসা হলে পরে তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। দেশীয় মদপানে মৃত্যু কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, সেই সম্পর্কে আমি কিছু বলতে পারছি না।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ওসি হাবিল হোসেন জানান, প্রসেনজিতের সুরতহাল করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া হরিরামপুর থানা দেখবে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে হরিরামপুর থানার পরিদর্শক মুজিবুর রহমান বলেন, মানিকগঞ্জ সদর থানা এরিয়ার হাটিপাড়া ইউনিয়নের জগন্নাথপুরে মদপানে দুজন মারা গেছে। এর মধ্যে একজন হরিরামপুরের। আরেকজন গাজীপুরের। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।
আরও পড়ুন>>ইতিহাসের এই দিনে: ৪ মার্চ: ২০২৪

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নাটোরে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ!

বিয়ের অনুষ্ঠানে মদপানে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু

প্রকাশিত সময় :- ১২:০৯:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায় বিয়ের অনুষ্ঠানে দেশীয় মদপানে অসুস্থ হয়ে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু হয়েছে।
শনিবার রাতে মুন্নু মেডিকেল কলেজে দীপু সরকার (২৯) ও মানিকগঞ্জ কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রসেনজিৎ সরকার (২১) নামে ওই দুই যুবক মারা যান বলে স্থানীয়দের বরাতে হরিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মজিবুর রহমান জানান।

দীপু গাজীপুর জেলার ভাওয়াল কলেজ এলাকার সতীশ সরকারের ছেলে এবং প্রসেনজিৎ হরিরামপুর উপজেলার বয়ড়া ইউনিয়নের দাসকান্দি বয়ড়া গ্রামের মৃত প্রকাশ সরকারের ছেলে। দীপুর বড় বোনের ছেলে প্রসেনজিৎ। প্রসেনজিতের মা ও বাবা নেই।

স্থানীয়রা জানান, সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামে মামাতো বোনের বিয়েতে আসেন দীপু সরকার। শুক্রবার মধ্যরাতে সেখানে গায়েহলুদের অনুষ্ঠানে মদপান করে কয়েকজন যুবক। শনিবার সকালের দিকে অসুস্থ হয়ে পড়েন দীপু ও প্রসেনজিৎ। পরে শনিবার সন্ধ্যায় প্রসেনজিতকে হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে অবস্থা গুরুতর থাকায় কর্তব্যরত চিকিৎসক মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন। পরে মানিকগঞ্জ কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রসেনজিতের মৃত্যু হয়। এদিকে দীপু সরকারকে মানিকগঞ্জ মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

দীপুর মামাতো ভাই সঞ্জয় বৈরাগী জানান, তার বোনের বিয়ে উপলক্ষে তাদের বাড়িতে গায়েহলুদে শুক্রবার মধ্যরাতে কয়েকজন মিলে তরল কিছু (মদ) খেলে ৬-৭ জন অসুস্থ হয়ে পড়ে। দীপু ও তার ভাগ্নে প্রসেনজিতও শনিবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার রাশেদা নাজনীন বলেন, শনিবার প্রসেনজিতকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসা হলে পরে তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। দেশীয় মদপানে মৃত্যু কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, সেই সম্পর্কে আমি কিছু বলতে পারছি না।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ওসি হাবিল হোসেন জানান, প্রসেনজিতের সুরতহাল করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া হরিরামপুর থানা দেখবে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে হরিরামপুর থানার পরিদর্শক মুজিবুর রহমান বলেন, মানিকগঞ্জ সদর থানা এরিয়ার হাটিপাড়া ইউনিয়নের জগন্নাথপুরে মদপানে দুজন মারা গেছে। এর মধ্যে একজন হরিরামপুরের। আরেকজন গাজীপুরের। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।
আরও পড়ুন>>ইতিহাসের এই দিনে: ৪ মার্চ: ২০২৪

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন