বাই-ব্যাক সেন্টার চালু করল কোক » NewsBijoy24 । Online Newspaper of Bangladesh.
ঢাকা ০৪:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাই-ব্যাক সেন্টার চালু করল কোক

  • প্রেস রিলিজ---
  • প্রকাশিত সময় :- ০৭:৫৯:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • ৩৮৭ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

ব্যবহৃত প্লাস্টিক ও প্লাস্টিকজাতীয় পণ্যের কেনাবেচার একটি বাই-ব্যাক সেন্টার (প্লাস্টিক বাজার) চালু করেছে দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন ও কর্ডএইড।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে পরিচালিত কর্ডএইড-এর প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রকল্প রেজিলিয়েন্ট (RESILIENT) ও কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগটির উদ্বোধন করা হয়েছে। কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের অনুদানের প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

বাই-ব্যাক সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে দুজন পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে বর্জ্য সমন্বয়কের ভূমিকায় উন্নীত করা, গ্রিন উদ্যোক্তা সৃষ্টি করা এবং ইকোসিস্টেমকে প্লাস্টিক বর্জ্যমুক্ত করার জন্য প্লাস্টিক সংগ্রহ পদ্ধতিকে উন্নত করা প্রকল্পটির উদ্দেশ্য। এই সেন্টারগুলো কমিউনিটির জন্য রিসাইক্লিং প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করে। এখানে প্লাস্টিক, কাগজ, ক্যান, কাচ এবং পিইটি বোতলের মতো রিসাইক্লেবল প্লাস্টিক কেনা, বাছাই এবং ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী ও রিসাইক্লারদের কাছে পুনরায় বিক্রি করা হয়। এই পদ্ধতির মাধ্যমে ৪০০ জন স্থানীয় পরিচ্ছন্নতা কর্মী ও কমিউনিটির প্রায় ১১,০০০ জন সদস্য প্লাস্টিক বিক্রির মাধ্যমে আয়ের সুযোগ পাচ্ছেন।

সেন্টারটি উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকির হোসেন।

বাই-ব্যাক সেন্টারের ধারণার পেছনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী’র অবদান অন্যতম। তিনি বলেন, “নারায়ণগঞ্জ নগরীকে সবুজ, নির্মল, প্রাণবন্ত এবং দূষণমুক্ত করার লক্ষ্যে কর্পোরেশনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সবুজ নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলা আমাদের সবার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। এরই ধারাবাহিকতায় প্লাস্টিক বাই-ব্যাক সেন্টারের মতো উদ্ভাবনী পদ্ধতি আমাদের কাজকে আরও ত্বরান্বিত করবে। উদ্যোগটি সত্যিই প্রশংসনীয় এবং এটি বিশেষভাবে নারী পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের আর্থিক সক্ষমতাও বৃদ্ধি করবে। আমি নগরবাসীসহ এই কার্যক্রমের সাথে জড়িত সবাইকে স্বাগত জানাই এবং প্লাস্টিক দূষণ সমস্যাকে আরও কার্যকরভাবে মোকাবেলা করার জন্য সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।”

বাই-ব্যাক সেন্টারগুলো পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবন বদলে দেওয়ার সুবিধা নিশ্চিতে কাজ করে। এ খাতে নারী কর্মীরা তুলনামূলকভাবে সুবিধাবঞ্চিত হওয়ায় এই উদ্যোগে অংশগ্রহণ ও সুবিধা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে উৎসাহিত করা হয়। এমনকি তারা আর্থিক সাক্ষরতা, সঞ্চয় স্কিম ও ক্রেডিট সুবিধা এবং নারী পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের উপার্জন ব্যবস্থাপনা ও দীর্ঘমেয়াদী আর্থিক নিরাপত্তার পরিকল্পনায় সহায়তার সেবাও দেয় সেন্টারগুলো।

দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের সহায়তায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের রেজিলিয়েন্ট (Recycling for the Environment by Strengthening Income and Livelihood of the Entrepreneurs) প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কাজ করছে কর্ডএইড।

জাতিসংঘ নির্ধারিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে কোকা-কোলা সিস্টেম বাংলাদেশ এবং দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন। প্লাস্টিক সংগ্রহ, ওয়াটার স্টুয়ার্ডশিপ এবং উইমেন বিজনেস সেন্টারের মতো কোম্পানিটির বৈশ্বিক উদ্যোগগুলোর দেশীয় সংস্করণ সমাজের উন্নয়নে সক্রিয় অবদান রাখছে।

উদ্বোধনী আয়োজনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন, কর্ডএইড বাংলাদেশ এবং রেজিলিয়েন্ট প্রকল্পের প্রকল্পের সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ

রংপুরে চালককে হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই

Advertisement

বাই-ব্যাক সেন্টার চালু করল কোক

প্রকাশিত সময় :- ০৭:৫৯:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ব্যবহৃত প্লাস্টিক ও প্লাস্টিকজাতীয় পণ্যের কেনাবেচার একটি বাই-ব্যাক সেন্টার (প্লাস্টিক বাজার) চালু করেছে দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন ও কর্ডএইড।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে পরিচালিত কর্ডএইড-এর প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রকল্প রেজিলিয়েন্ট (RESILIENT) ও কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগটির উদ্বোধন করা হয়েছে। কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের অনুদানের প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

বাই-ব্যাক সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে দুজন পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে বর্জ্য সমন্বয়কের ভূমিকায় উন্নীত করা, গ্রিন উদ্যোক্তা সৃষ্টি করা এবং ইকোসিস্টেমকে প্লাস্টিক বর্জ্যমুক্ত করার জন্য প্লাস্টিক সংগ্রহ পদ্ধতিকে উন্নত করা প্রকল্পটির উদ্দেশ্য। এই সেন্টারগুলো কমিউনিটির জন্য রিসাইক্লিং প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করে। এখানে প্লাস্টিক, কাগজ, ক্যান, কাচ এবং পিইটি বোতলের মতো রিসাইক্লেবল প্লাস্টিক কেনা, বাছাই এবং ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী ও রিসাইক্লারদের কাছে পুনরায় বিক্রি করা হয়। এই পদ্ধতির মাধ্যমে ৪০০ জন স্থানীয় পরিচ্ছন্নতা কর্মী ও কমিউনিটির প্রায় ১১,০০০ জন সদস্য প্লাস্টিক বিক্রির মাধ্যমে আয়ের সুযোগ পাচ্ছেন।

সেন্টারটি উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকির হোসেন।

বাই-ব্যাক সেন্টারের ধারণার পেছনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী’র অবদান অন্যতম। তিনি বলেন, “নারায়ণগঞ্জ নগরীকে সবুজ, নির্মল, প্রাণবন্ত এবং দূষণমুক্ত করার লক্ষ্যে কর্পোরেশনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সবুজ নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলা আমাদের সবার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। এরই ধারাবাহিকতায় প্লাস্টিক বাই-ব্যাক সেন্টারের মতো উদ্ভাবনী পদ্ধতি আমাদের কাজকে আরও ত্বরান্বিত করবে। উদ্যোগটি সত্যিই প্রশংসনীয় এবং এটি বিশেষভাবে নারী পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের আর্থিক সক্ষমতাও বৃদ্ধি করবে। আমি নগরবাসীসহ এই কার্যক্রমের সাথে জড়িত সবাইকে স্বাগত জানাই এবং প্লাস্টিক দূষণ সমস্যাকে আরও কার্যকরভাবে মোকাবেলা করার জন্য সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।”

বাই-ব্যাক সেন্টারগুলো পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবন বদলে দেওয়ার সুবিধা নিশ্চিতে কাজ করে। এ খাতে নারী কর্মীরা তুলনামূলকভাবে সুবিধাবঞ্চিত হওয়ায় এই উদ্যোগে অংশগ্রহণ ও সুবিধা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে উৎসাহিত করা হয়। এমনকি তারা আর্থিক সাক্ষরতা, সঞ্চয় স্কিম ও ক্রেডিট সুবিধা এবং নারী পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের উপার্জন ব্যবস্থাপনা ও দীর্ঘমেয়াদী আর্থিক নিরাপত্তার পরিকল্পনায় সহায়তার সেবাও দেয় সেন্টারগুলো।

দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের সহায়তায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের রেজিলিয়েন্ট (Recycling for the Environment by Strengthening Income and Livelihood of the Entrepreneurs) প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কাজ করছে কর্ডএইড।

জাতিসংঘ নির্ধারিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে কোকা-কোলা সিস্টেম বাংলাদেশ এবং দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন। প্লাস্টিক সংগ্রহ, ওয়াটার স্টুয়ার্ডশিপ এবং উইমেন বিজনেস সেন্টারের মতো কোম্পানিটির বৈশ্বিক উদ্যোগগুলোর দেশীয় সংস্করণ সমাজের উন্নয়নে সক্রিয় অবদান রাখছে।

উদ্বোধনী আয়োজনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন, কর্ডএইড বাংলাদেশ এবং রেজিলিয়েন্ট প্রকল্পের প্রকল্পের সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন