ঢাকা ০৫:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মুবারক

ফুলবাড়ীতে খাওয়ার পানিতে চেতনানাশক প্রয়োগ, আহত-৪

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে চুরি করার উদ্দেশ্যে পৃথক দুইটি বাড়ীতে পানির ট্যাংঙ্কের ভিতরে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে একই পরিবারের ৪ জনকে অচেতন করেছে সংঘবদ্ধ চোরের সদস্যরা। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ৪ জনকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বিদ্যাবাগিশ ধারিয়ার পাট এলাকায়। আহতদের অবস্থা এখনো স্বাভাবিক হয়নি।
আহতরা হলেন ওই এলাকার গনেশ চন্দ্রের ছেলে র্নিমল চন্দ্র (৫১)তার স্ত্রী পিতিলতা রানী (৪৪) র্নিমল চন্দ্রের ছেলে স্বপন চন্দ্র রায়(৩৭) ও তার আত্বীয় চিনুবালা (৫৫)। তারা সকালে খাবার খেয়ে বিকালে অচেতন হয়ে পড়েন। পরে পরিবারের অন্য সদস্যরা তাদেরকে স্বাভাবিক করার অনেক চেষ্টা করেন। কিন্তু স্বাভাবিক না হওয়ায় এবং ঘুমে বিভোড় থাকায় তাদেরকে শুক্রবার সন্ধায় ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ওই এলাকার আনিচুর রহমান ও স্বজন প্রদীপ চন্দ্র রায় জানান, সংঘবদ্ধ একটি চক্র আগে ওই বাড়ী দুইটিতে কৌশলে পানির ট্যাংঙ্কিতে চেতনানাশক ওষুধ স্প্রে করে দিয়ে ছিল। আহতরা পানি পান করে অচেতন হয়ে পড়েছে। কিন্তু চোর চক্র ঘরে ঢুকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মূল্যবান মালামাল চুরি করতে পারেনি।
সম্প্রতি সময় ফুলবাড়ী আর্দশ স্কুলের পাশে, নাওডাঙ্গা ব্রীজের পার, ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজ পাড়ায় একই ভাবে পরিবারের সদস্যদেরকে পানিতে চেতনানাশক ওষুধ স্প্রে কওে স্বর্ণালংকার সহ সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেছে সংঘ বদ্ধ চোরের দল।
আহত স্বপন চন্দ্র রায়ের স্ত্রী স্বপ্না রানী রায় জানান, সকাল ১০টা পার হলেও দেখি কেউ ঘুম থেকে জাগছে না। অনেক ডাকাডাকি করছি তাও ঘুম থেকে উঠছে না। মাঝে মধ্যে উল্টোপাল্টা বলছে। অনেক চেস্টার পরেও স্বাভাবিক না হওয়ায় তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।
আহতের নিকট আত্মীয় জয়ন্ত কুমার রায় জানান পানির ট্যাকির ভিতরে চেতনানাশক ওষুধের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে পুলিশকে অবগত করা হয়েছে ।
ফুলবাড়ী হাসপাতালের কর্মরত চিকিৎসক ডাঃ নুশরাত জাহান জানান, আহতদের চিকিৎসা চলছে। তাঁরা এখনো পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি।
ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনর্চাজ ফজলুর রহমান জানান বিষয়টি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে । তারা আসলে বিস্তারিত শুনার পর আইনাগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

 

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

ফুলবাড়ীতে খাওয়ার পানিতে চেতনানাশক প্রয়োগ, আহত-৪

প্রকাশিত সময় :- ০৬:৪১:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ মে ২০২৩

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে চুরি করার উদ্দেশ্যে পৃথক দুইটি বাড়ীতে পানির ট্যাংঙ্কের ভিতরে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে একই পরিবারের ৪ জনকে অচেতন করেছে সংঘবদ্ধ চোরের সদস্যরা। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ৪ জনকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বিদ্যাবাগিশ ধারিয়ার পাট এলাকায়। আহতদের অবস্থা এখনো স্বাভাবিক হয়নি।
আহতরা হলেন ওই এলাকার গনেশ চন্দ্রের ছেলে র্নিমল চন্দ্র (৫১)তার স্ত্রী পিতিলতা রানী (৪৪) র্নিমল চন্দ্রের ছেলে স্বপন চন্দ্র রায়(৩৭) ও তার আত্বীয় চিনুবালা (৫৫)। তারা সকালে খাবার খেয়ে বিকালে অচেতন হয়ে পড়েন। পরে পরিবারের অন্য সদস্যরা তাদেরকে স্বাভাবিক করার অনেক চেষ্টা করেন। কিন্তু স্বাভাবিক না হওয়ায় এবং ঘুমে বিভোড় থাকায় তাদেরকে শুক্রবার সন্ধায় ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ওই এলাকার আনিচুর রহমান ও স্বজন প্রদীপ চন্দ্র রায় জানান, সংঘবদ্ধ একটি চক্র আগে ওই বাড়ী দুইটিতে কৌশলে পানির ট্যাংঙ্কিতে চেতনানাশক ওষুধ স্প্রে করে দিয়ে ছিল। আহতরা পানি পান করে অচেতন হয়ে পড়েছে। কিন্তু চোর চক্র ঘরে ঢুকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মূল্যবান মালামাল চুরি করতে পারেনি।
সম্প্রতি সময় ফুলবাড়ী আর্দশ স্কুলের পাশে, নাওডাঙ্গা ব্রীজের পার, ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজ পাড়ায় একই ভাবে পরিবারের সদস্যদেরকে পানিতে চেতনানাশক ওষুধ স্প্রে কওে স্বর্ণালংকার সহ সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেছে সংঘ বদ্ধ চোরের দল।
আহত স্বপন চন্দ্র রায়ের স্ত্রী স্বপ্না রানী রায় জানান, সকাল ১০টা পার হলেও দেখি কেউ ঘুম থেকে জাগছে না। অনেক ডাকাডাকি করছি তাও ঘুম থেকে উঠছে না। মাঝে মধ্যে উল্টোপাল্টা বলছে। অনেক চেস্টার পরেও স্বাভাবিক না হওয়ায় তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।
আহতের নিকট আত্মীয় জয়ন্ত কুমার রায় জানান পানির ট্যাকির ভিতরে চেতনানাশক ওষুধের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে পুলিশকে অবগত করা হয়েছে ।
ফুলবাড়ী হাসপাতালের কর্মরত চিকিৎসক ডাঃ নুশরাত জাহান জানান, আহতদের চিকিৎসা চলছে। তাঁরা এখনো পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি।
ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনর্চাজ ফজলুর রহমান জানান বিষয়টি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে । তারা আসলে বিস্তারিত শুনার পর আইনাগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন