ঢাকা ১২:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় ‘আবহাওয়া তথ্য বোর্ড’ কাজে আসছেনা কৃষকদের

কৃষিকে আধুনিকায়ন, ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার লক্ষ্যে দিনাজপুরের হাকিমপুর(হিলি) উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে বসানো হয় আবহাওয়ার পূর্বাভাস তথ্য বোর্ড। আবহাওয়ার আগাম তথ্যসেবা নিশ্চিত করতে পাঁচ বছর আগে কৃষকদের জন্য নির্মিত এ বোর্ডগুলোর তথ্য হালনাগাদ করা হয়না। অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে তথ্যবোর্ড গুলো। ফলে উপজেলার কৃষকরা আবহাওয়ার কোন তথ্য জানতে না পারায় সরকারের নেয়া এ প্রকল্পটি কোন কাজেই আসছেনা।

স্থানীয় কয়েকজন কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবিলায় কৃষকদের আগাম তথ্য সরবরাহ করতে গত ২০১৮ – ১৯ অর্থ বছরে কৃষি আবহাওয়া তথ্য পদ্ধতি উন্নীতকরণ প্রকল্প চালু করা হয়। সে লক্ষ্যে উপজেলার তিনটি ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে বসানো হয় এসব তথ্য বোর্ড।
প্রকল্পটি চালু হলে কৃষকরা বীজ বোপন, চারা রোপন, সার সেচ প্রয়োগ ও ফসল কাটার সঠিক সময়টি জানতে পারতো। আবহাওয়ার গতিবিধি বুঝে পরিকল্পনা মাফিক চাষাবাদ করতে পারলে উপকৃত হতো এলাকার কৃষক। উৎপাদন বাড়তো দেশের কৃষি খাতের।

স্থানীয় কৃষকদের দাবি, ইউনিয়ন পরিষদের কৃষি আবহাওয়া পূর্ভাবাস বোর্ডের তথ্য দেয়ার স্থান গুলো ফাঁকা রয়েছে। যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনীয় নম্বর দেয়ার স্থানটিও ফাঁকা। সরকারের উদ্দেশ্য ছিল, কৃষকদের মাঝে আবহাওয়ার আগাম তথ্য পৌঁছানো।
কিন্তু তাদের অনেকে জানেনই না আবহাওয়া তথ্যবোর্ড নামে কোন বোর্ড আছে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানতে পারলে কৃষিতে আরো উন্নতি করতে পারতো তারা। তাদের দাবি আবহাওয়া তথ্যবোর্ড গুলো সচল করা হোক।

উপজেলার খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাওসার রহমান বলেন, কৃষিসম্প্রসারণ অফিস কৃষকদের জন্য আবহাওয়া পূর্ভাবাসের একটি বোর্ড আমার পরিষদ ভবনে লাগিয়েছে। আমার দায়িত্বভার গ্রহণের দেড় বছরেও সেই বোর্ডগুলোর আপডেট করা হয়নি। বিষয়টি আমি কৃষি বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

বিষয়টি অস্বীকার করেন হাকিমপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরজেনা বেগম। তিনি বলেন তথ্য বোর্ডগুলো নিয়মিত আপডেট করা হয়। আমাদের উপ- সহকারী কৃষি অফিসাররা হাতে লিখে বোর্ডগুলো আপডেট করে থাকে। সেখানে আবহাওয়া, আদ্রতাসহ কৃষি তথ্যগুলো আপডেট করা হয়।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নেপালে ভূমিধসে নদীতে পড়ল দুই বাস, নিখোঁজ ৬৩

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় ‘আবহাওয়া তথ্য বোর্ড’ কাজে আসছেনা কৃষকদের

প্রকাশিত সময় :- ০১:২৪:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ অক্টোবর ২০২৩

কৃষিকে আধুনিকায়ন, ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার লক্ষ্যে দিনাজপুরের হাকিমপুর(হিলি) উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে বসানো হয় আবহাওয়ার পূর্বাভাস তথ্য বোর্ড। আবহাওয়ার আগাম তথ্যসেবা নিশ্চিত করতে পাঁচ বছর আগে কৃষকদের জন্য নির্মিত এ বোর্ডগুলোর তথ্য হালনাগাদ করা হয়না। অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে তথ্যবোর্ড গুলো। ফলে উপজেলার কৃষকরা আবহাওয়ার কোন তথ্য জানতে না পারায় সরকারের নেয়া এ প্রকল্পটি কোন কাজেই আসছেনা।

স্থানীয় কয়েকজন কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবিলায় কৃষকদের আগাম তথ্য সরবরাহ করতে গত ২০১৮ – ১৯ অর্থ বছরে কৃষি আবহাওয়া তথ্য পদ্ধতি উন্নীতকরণ প্রকল্প চালু করা হয়। সে লক্ষ্যে উপজেলার তিনটি ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে বসানো হয় এসব তথ্য বোর্ড।
প্রকল্পটি চালু হলে কৃষকরা বীজ বোপন, চারা রোপন, সার সেচ প্রয়োগ ও ফসল কাটার সঠিক সময়টি জানতে পারতো। আবহাওয়ার গতিবিধি বুঝে পরিকল্পনা মাফিক চাষাবাদ করতে পারলে উপকৃত হতো এলাকার কৃষক। উৎপাদন বাড়তো দেশের কৃষি খাতের।

স্থানীয় কৃষকদের দাবি, ইউনিয়ন পরিষদের কৃষি আবহাওয়া পূর্ভাবাস বোর্ডের তথ্য দেয়ার স্থান গুলো ফাঁকা রয়েছে। যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনীয় নম্বর দেয়ার স্থানটিও ফাঁকা। সরকারের উদ্দেশ্য ছিল, কৃষকদের মাঝে আবহাওয়ার আগাম তথ্য পৌঁছানো।
কিন্তু তাদের অনেকে জানেনই না আবহাওয়া তথ্যবোর্ড নামে কোন বোর্ড আছে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানতে পারলে কৃষিতে আরো উন্নতি করতে পারতো তারা। তাদের দাবি আবহাওয়া তথ্যবোর্ড গুলো সচল করা হোক।

উপজেলার খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাওসার রহমান বলেন, কৃষিসম্প্রসারণ অফিস কৃষকদের জন্য আবহাওয়া পূর্ভাবাসের একটি বোর্ড আমার পরিষদ ভবনে লাগিয়েছে। আমার দায়িত্বভার গ্রহণের দেড় বছরেও সেই বোর্ডগুলোর আপডেট করা হয়নি। বিষয়টি আমি কৃষি বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

বিষয়টি অস্বীকার করেন হাকিমপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরজেনা বেগম। তিনি বলেন তথ্য বোর্ডগুলো নিয়মিত আপডেট করা হয়। আমাদের উপ- সহকারী কৃষি অফিসাররা হাতে লিখে বোর্ডগুলো আপডেট করে থাকে। সেখানে আবহাওয়া, আদ্রতাসহ কৃষি তথ্যগুলো আপডেট করা হয়।

নিউজবিজয়/এফএইচএন