ঢাকা ১১:৪১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্ব পরিবেশ দিবস

পেনশন সংগ্রহের জন্য ৫ বছর ধরে স্ত্রীর দেহ ফ্রিজে রাখলেন স্বামী

জালিয়াতি এবং মিথ্যা বলার জন্য সুইডেনের একটি আদালত ৫৭ বছর বয়সী এক নরওয়েজিয়ান ব্যক্তিকে সাড়ে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। লোকটি তার স্ত্রীর পেনশন সংগ্রহের জন্য প্রায় পাঁচ বছর ধরে একটি ফ্রিজারে স্ত্রীর দেহ সংরক্ষণ করে রেখেছিলো। আদালতে লোকটির আইনজীবী দাবি করেছিলেন, কোনও কবরস্থানে তাদের সমাধিস্থ করা হোক, এটা নাকি ওই দম্পতির কেউ চাইতেন না। তাঁদের ইচ্ছা ছিল নিজেদের খামারবাড়ির চত্বরেই তাঁদের সমাধি দেওয়া হবে। তাই লোকটি নিজের স্ত্রীর মৃত্যুর পর তাকে ফ্রিজারে রেখে দিয়েছিল। পরে তাঁকে বাইরে এক জায়গায় কবর দেবে বলে ভেবেছিল, কিন্তু তা আর হয়ে ওঠেনি। ওই ব্যক্তির ৬০বছর বয়সী স্ত্রী ২০১৮ সালে ক্যান্সারে মারা যায়। কিন্তু লোকটি তার বন্ধুদের এবং পরিবারের কাউকেই কিছু জানতে দেয়নি। একটি ইংরেজি-ভাষার নরওয়েজিয়ান নিউজ সাইট অনুসারে, মৃতের পরিবারের লোকজন তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করতে চাইলে লোকটি তাদের জানাতো হয় সে বাড়ি নেই, নয়তো সে হয় ঘুমাচ্ছে। এক সময় সে বলেছিল, কারও সঙ্গে আর কথা বলতে চান না তার স্ত্রী। তাঁর সঙ্গে সব যোগাযোগ হারিয়ে ফেলার পর, মৃতের পরিবারবর্গের সন্দেহ হয়। ঘটনাটি তাঁরা পুলিশে জানিয়েছিলেন।
পুলিশ মার্চ মাসে একটি সূত্র অনুসরণ করে ওই ব্যক্তির মৃত স্ত্রীর লাশ খুঁজে পেয়েছিল, এবং জেরার মুখে লোকটি স্বীকার করে যে সে মৃত্যুর পর স্ত্রীর দেহ লুকিয়ে রেখেছিল ফ্রিজে। শুধু তাই নয়, একই ফ্রিজারে খাবার এবং স্ত্রীর দেহ রেখে, লাগাতার সে তার স্ত্রীর পেনশন এবং ট্যাক্স ছাড়ের দাবি করে এসেছে। দম্পতি স্টকহোম থেকে প্রায় ৩৪০ কিলোমিটার পশ্চিমে অবস্থিত আরজাং-এ বাস করতেন। কয়েকটি স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে,ইতিমধ্যে লোকটি স্ত্রীর পেনশন এবং ট্যাক্স রেয়াত বাবদ মোট ১.২ মিলিয়ন নরওয়েজিয়ান ক্রোনার (১ লক্ষ ১৬ হাজার ডলার) হাতিয়ে নিয়েছে। ফেডারেল আদালত অভিযুক্তকে নাগরিক স্বাধীনতার চরম লঙ্ঘন, ব্যাপক জালিয়াতি, একটি মৃতদেহ বিকৃত করা এবং নথিপত্র জাল করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছে। সূত্র : এনডিটিভি

নিউজ বিজয়/নুসরাত জাহান নুপুর

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

মেসি-মার্টিনেজের গোলে আর্জেন্টিনার বড় জয়

পেনশন সংগ্রহের জন্য ৫ বছর ধরে স্ত্রীর দেহ ফ্রিজে রাখলেন স্বামী

প্রকাশিত সময় :- ০৭:০৫:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

জালিয়াতি এবং মিথ্যা বলার জন্য সুইডেনের একটি আদালত ৫৭ বছর বয়সী এক নরওয়েজিয়ান ব্যক্তিকে সাড়ে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। লোকটি তার স্ত্রীর পেনশন সংগ্রহের জন্য প্রায় পাঁচ বছর ধরে একটি ফ্রিজারে স্ত্রীর দেহ সংরক্ষণ করে রেখেছিলো। আদালতে লোকটির আইনজীবী দাবি করেছিলেন, কোনও কবরস্থানে তাদের সমাধিস্থ করা হোক, এটা নাকি ওই দম্পতির কেউ চাইতেন না। তাঁদের ইচ্ছা ছিল নিজেদের খামারবাড়ির চত্বরেই তাঁদের সমাধি দেওয়া হবে। তাই লোকটি নিজের স্ত্রীর মৃত্যুর পর তাকে ফ্রিজারে রেখে দিয়েছিল। পরে তাঁকে বাইরে এক জায়গায় কবর দেবে বলে ভেবেছিল, কিন্তু তা আর হয়ে ওঠেনি। ওই ব্যক্তির ৬০বছর বয়সী স্ত্রী ২০১৮ সালে ক্যান্সারে মারা যায়। কিন্তু লোকটি তার বন্ধুদের এবং পরিবারের কাউকেই কিছু জানতে দেয়নি। একটি ইংরেজি-ভাষার নরওয়েজিয়ান নিউজ সাইট অনুসারে, মৃতের পরিবারের লোকজন তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করতে চাইলে লোকটি তাদের জানাতো হয় সে বাড়ি নেই, নয়তো সে হয় ঘুমাচ্ছে। এক সময় সে বলেছিল, কারও সঙ্গে আর কথা বলতে চান না তার স্ত্রী। তাঁর সঙ্গে সব যোগাযোগ হারিয়ে ফেলার পর, মৃতের পরিবারবর্গের সন্দেহ হয়। ঘটনাটি তাঁরা পুলিশে জানিয়েছিলেন।
পুলিশ মার্চ মাসে একটি সূত্র অনুসরণ করে ওই ব্যক্তির মৃত স্ত্রীর লাশ খুঁজে পেয়েছিল, এবং জেরার মুখে লোকটি স্বীকার করে যে সে মৃত্যুর পর স্ত্রীর দেহ লুকিয়ে রেখেছিল ফ্রিজে। শুধু তাই নয়, একই ফ্রিজারে খাবার এবং স্ত্রীর দেহ রেখে, লাগাতার সে তার স্ত্রীর পেনশন এবং ট্যাক্স ছাড়ের দাবি করে এসেছে। দম্পতি স্টকহোম থেকে প্রায় ৩৪০ কিলোমিটার পশ্চিমে অবস্থিত আরজাং-এ বাস করতেন। কয়েকটি স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে,ইতিমধ্যে লোকটি স্ত্রীর পেনশন এবং ট্যাক্স রেয়াত বাবদ মোট ১.২ মিলিয়ন নরওয়েজিয়ান ক্রোনার (১ লক্ষ ১৬ হাজার ডলার) হাতিয়ে নিয়েছে। ফেডারেল আদালত অভিযুক্তকে নাগরিক স্বাধীনতার চরম লঙ্ঘন, ব্যাপক জালিয়াতি, একটি মৃতদেহ বিকৃত করা এবং নথিপত্র জাল করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছে। সূত্র : এনডিটিভি

নিউজ বিজয়/নুসরাত জাহান নুপুর