ঢাকা ০৫:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মোবারক

নেপালে ৭২ আরোহী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত, ৪০ মৃতদেহ উদ্ধার

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ০২:২৩:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৩
  • ২৬৩ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

নেপালের পোখারায় ৭২ আরোহী নিয়ে একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটিতে তিন শিশুসহ ৬৮ যাত্রী এবং চারজন ক্রু ছিলেন। রোববার এক প্রতিবেদনে নেপালি সংবাদমাধ্যম কাঠমান্ডু পোস্ট জানিয়েছে, ধ্বংসস্তূপ থেকে অন্তত ৪০টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ইয়েতি এয়ারলাইন্সের টুইন-ইঞ্জিনের এটিআর৭২ বিমানটি নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে যাত্রা করে এবং পোখরার পুরাতন এবং নতুন বিমানবন্দরের মধ্যবর্তীস্থানে বিধ্বস্ত হয়।

বিবিসি জানিয়েছে, যাত্রীদের মধ্যে ৫৩ জন নেপালি, পাঁচজন ভারতীয়, চারজন রুশ ও দুই কোরিয়ান ছিলেন। এছাড়াও আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আর্জেন্টিনা এবং ফ্রান্স থেকে একজন করে যাত্রী ছিলেন।

নেপালের সিভিল এভিয়েশন অথরিটি (সিএএএন) জানিয়েছে, বিমানটি কাঠমান্ডু থেকে সকাল ১০:৩৩ মিনিটে উড্ডয়ন করেছিল এবং প্রায় ২০ মিনিট পরে দুর্ঘটনাটি ঘটেছিল। দুই শহরের মধ্যে ফ্লাইট সময় ২৫ মিনিট। তবে বিমানটি পোখারা বিমানবন্দরে অবতরণের মাত্র ৫ মিনিটের দূরত্বে একটি নদীর তীরে বিধ্বস্ত হয়।

একজন স্থানীয় কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার সাথে সাথে আগুন ধরে যায় এবং উদ্ধারকর্মীরা এটি নিভানোর চেষ্টা করছেন। ধ্বংসাবশেষে আগুনের কারণে উদ্ধার অভিযান বাধাগ্রস্ত হয়েছে।

 নিউজ বিজয়ের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

ইয়েতি এয়ারলাইন্সের মুখপাত্র সুদর্শন বরতৌলা এএফপিকে বলেছেন, আমরা এখনই জানি না কেউ বেঁচে আছে কিনা। তবে উদ্ধার তৎপরতা এখনও চলছে।

এদিকে নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহল ‘প্রচন্ড’ মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকেছেন এবং রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলিকে উদ্ধার অভিযানে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এয়ারক্রাফ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হিমালয়ের দেশটিতে বিশ্বের সবচেয়ে দূরবর্তী এবং জটিল রানওয়ে রয়েছে, যেখানে আবহাওয়া দ্রুত পরিবর্তন ঘটে। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে চ্যালেঞ্জিং পাহাড়ী ভূখণ্ড যেখানে অতীতে মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটেছে।

গত মে মাসে, তারা এয়ারের মালিকানাধীন একটি বিমান পোখারা থেকে উড্ডয়নের ২০ মিনিটেরও কম সময় পরে বিধ্বস্ত হয়, যা তিব্বতের সীমান্তবর্তী মুস্তাং জেলার একটি জনপ্রিয় ট্রেকিং এবং তীর্থস্থান গন্তব্য জোমসোমের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

২০১৮ সালে, কাঠমান্ডুতে অবতরণের সময় বাংলাদেশ থেকে ইউএস-বাংলার একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত হয়, এতে থাকা ৭১ জনের মধ্যে ৪৯ জন নিহত হয়।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

গুলিবিদ্ধ ইউপি সদস্য নান্নুকে মামলায় পলাতক দেখালো বিজিবি

নেপালে ৭২ আরোহী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত, ৪০ মৃতদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত সময় :- ০২:২৩:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৩

নেপালের পোখারায় ৭২ আরোহী নিয়ে একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটিতে তিন শিশুসহ ৬৮ যাত্রী এবং চারজন ক্রু ছিলেন। রোববার এক প্রতিবেদনে নেপালি সংবাদমাধ্যম কাঠমান্ডু পোস্ট জানিয়েছে, ধ্বংসস্তূপ থেকে অন্তত ৪০টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ইয়েতি এয়ারলাইন্সের টুইন-ইঞ্জিনের এটিআর৭২ বিমানটি নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে যাত্রা করে এবং পোখরার পুরাতন এবং নতুন বিমানবন্দরের মধ্যবর্তীস্থানে বিধ্বস্ত হয়।

বিবিসি জানিয়েছে, যাত্রীদের মধ্যে ৫৩ জন নেপালি, পাঁচজন ভারতীয়, চারজন রুশ ও দুই কোরিয়ান ছিলেন। এছাড়াও আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আর্জেন্টিনা এবং ফ্রান্স থেকে একজন করে যাত্রী ছিলেন।

নেপালের সিভিল এভিয়েশন অথরিটি (সিএএএন) জানিয়েছে, বিমানটি কাঠমান্ডু থেকে সকাল ১০:৩৩ মিনিটে উড্ডয়ন করেছিল এবং প্রায় ২০ মিনিট পরে দুর্ঘটনাটি ঘটেছিল। দুই শহরের মধ্যে ফ্লাইট সময় ২৫ মিনিট। তবে বিমানটি পোখারা বিমানবন্দরে অবতরণের মাত্র ৫ মিনিটের দূরত্বে একটি নদীর তীরে বিধ্বস্ত হয়।

একজন স্থানীয় কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার সাথে সাথে আগুন ধরে যায় এবং উদ্ধারকর্মীরা এটি নিভানোর চেষ্টা করছেন। ধ্বংসাবশেষে আগুনের কারণে উদ্ধার অভিযান বাধাগ্রস্ত হয়েছে।

 নিউজ বিজয়ের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

ইয়েতি এয়ারলাইন্সের মুখপাত্র সুদর্শন বরতৌলা এএফপিকে বলেছেন, আমরা এখনই জানি না কেউ বেঁচে আছে কিনা। তবে উদ্ধার তৎপরতা এখনও চলছে।

এদিকে নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহল ‘প্রচন্ড’ মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকেছেন এবং রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলিকে উদ্ধার অভিযানে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এয়ারক্রাফ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হিমালয়ের দেশটিতে বিশ্বের সবচেয়ে দূরবর্তী এবং জটিল রানওয়ে রয়েছে, যেখানে আবহাওয়া দ্রুত পরিবর্তন ঘটে। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে চ্যালেঞ্জিং পাহাড়ী ভূখণ্ড যেখানে অতীতে মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটেছে।

গত মে মাসে, তারা এয়ারের মালিকানাধীন একটি বিমান পোখারা থেকে উড্ডয়নের ২০ মিনিটেরও কম সময় পরে বিধ্বস্ত হয়, যা তিব্বতের সীমান্তবর্তী মুস্তাং জেলার একটি জনপ্রিয় ট্রেকিং এবং তীর্থস্থান গন্তব্য জোমসোমের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

২০১৮ সালে, কাঠমান্ডুতে অবতরণের সময় বাংলাদেশ থেকে ইউএস-বাংলার একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত হয়, এতে থাকা ৭১ জনের মধ্যে ৪৯ জন নিহত হয়।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন