ঢাকা ১১:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মোবারক

দেশে বৃষ্টির বিষয়ে যা জানাল আবহাওয়া অফিস

  • নিউজ বিজয় ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ১২:২১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪
  • ৪৫৮ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

শীত নিয়ে যে সুখবর দিল আবহাওয়া অফিস । ছবি: সংগৃহীত

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। আর মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপের অবস্থান দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে। তাই এই সপ্তাহে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর থেকে পাওয়া ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের আবহাওয়ার সর্বশেষ সংবাদে বৃষ্টিপাতের বিষয়ে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের তাপমাত্রা প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।
আর সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় একইরকম থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

শনিবার (২ মার্চ) সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল: ৭৮ শতাংশ।

এদিকে শুক্রবার সারা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজার; ৩৩ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গা; ১৩ দশমিক ০৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অন্যদিকে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ও নরওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তর। এতে বলা হয়, মার্চ থেকেই তাপদাহের মুখে পড়তে পারে দেশ।

আবহাওয়া অফিস গত বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত চার দশকে রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেড়েছে শূন্য দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকা, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগে বেড়েছে শূন্য দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়াও বৃষ্টিপাতের ধরন, সূর্যালোক ও মেঘের প্রবণতার পরিবর্তন এসেছে।

দেশের খরতাপ এখন আর এপ্রিলে নয়, শুরু হয় মার্চেই। জুন-জুলাইয়ের বর্ষা উধাও। আগস্ট-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকছে গ্রীষ্মের তাপদাহ। আবার অক্টোবর নভেম্বরে হচ্ছে ভারী বৃষ্টি। ষড়ঋতুর দেশে এখন আবহাওয়া বেশ গোলমেলে।

চার দশকের দেশের আবহাওয়া নিয়ে গবেষণা করেছে নরওয়ে ও বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। ২০২১ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত তিন বছর ধরে এই গবেষণা হয়। ৩৫টি আবহাওয়া স্টেশনেরর তথ্য উপাত্ত পর্যালোচনায় দেখা গেছে, রাজশাহীতে চার দশকে সর্বোচ্চ শূন্য দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে। ঢাকা, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগে বেড়েছে শূন্য দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ ড. বজলুর রশিদ বলেন, ‘মার্চের মাঝামাঝি থেকে এপ্রিলে এই হিটওয়েভ বেড়ে যেতে পারে। এমনকি বর্ষাকালেও এটা গতবারের মতো এবারও প্রকট হতে পারে। কারণ ইতিমধ্যে বিভিন্ন রকম সিগনেচার দেখা যাচ্ছে তাপমাত্রার বৃদ্ধির প্রবণতা এবছর অনেক বেশি।’

গবেষণা পর্যালোচনা করে নরওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তর প্রধান হেন্স অলাভ হেগান জানান, তাপদাহের পরিধি বাড়ছে বাংলাদেশে। যা আগামীতে আরও তীব্র হবে।

হেগান বলেন, ‘বর্ষা ও তাপমাত্রার তারতাম্য বাংলাদেশের কৃষির জন্য বড় হুমকির। এখান থেকে ভবিষ্যত পরিকল্পনা করতে হবে। কারণ একটি চরম উষ্ণ ভবিষ্যত অপেক্ষা করছে।’

শুধু বর্ষা নয়, শীতেও বেড়ে যাচ্ছে তাপমাত্রা। বেড়েছে মেঘাচ্ছন্ন দিনের পরিমাণ। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে প্রায় বছরজুড়ে বায়ুদূষণ।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নাটোরে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ!

দেশে বৃষ্টির বিষয়ে যা জানাল আবহাওয়া অফিস

প্রকাশিত সময় :- ১২:২১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। আর মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপের অবস্থান দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে। তাই এই সপ্তাহে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর থেকে পাওয়া ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের আবহাওয়ার সর্বশেষ সংবাদে বৃষ্টিপাতের বিষয়ে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের তাপমাত্রা প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।
আর সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় একইরকম থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

শনিবার (২ মার্চ) সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল: ৭৮ শতাংশ।

এদিকে শুক্রবার সারা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজার; ৩৩ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গা; ১৩ দশমিক ০৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অন্যদিকে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ও নরওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তর। এতে বলা হয়, মার্চ থেকেই তাপদাহের মুখে পড়তে পারে দেশ।

আবহাওয়া অফিস গত বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত চার দশকে রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেড়েছে শূন্য দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকা, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগে বেড়েছে শূন্য দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়াও বৃষ্টিপাতের ধরন, সূর্যালোক ও মেঘের প্রবণতার পরিবর্তন এসেছে।

দেশের খরতাপ এখন আর এপ্রিলে নয়, শুরু হয় মার্চেই। জুন-জুলাইয়ের বর্ষা উধাও। আগস্ট-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকছে গ্রীষ্মের তাপদাহ। আবার অক্টোবর নভেম্বরে হচ্ছে ভারী বৃষ্টি। ষড়ঋতুর দেশে এখন আবহাওয়া বেশ গোলমেলে।

চার দশকের দেশের আবহাওয়া নিয়ে গবেষণা করেছে নরওয়ে ও বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। ২০২১ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত তিন বছর ধরে এই গবেষণা হয়। ৩৫টি আবহাওয়া স্টেশনেরর তথ্য উপাত্ত পর্যালোচনায় দেখা গেছে, রাজশাহীতে চার দশকে সর্বোচ্চ শূন্য দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে। ঢাকা, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগে বেড়েছে শূন্য দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ ড. বজলুর রশিদ বলেন, ‘মার্চের মাঝামাঝি থেকে এপ্রিলে এই হিটওয়েভ বেড়ে যেতে পারে। এমনকি বর্ষাকালেও এটা গতবারের মতো এবারও প্রকট হতে পারে। কারণ ইতিমধ্যে বিভিন্ন রকম সিগনেচার দেখা যাচ্ছে তাপমাত্রার বৃদ্ধির প্রবণতা এবছর অনেক বেশি।’

গবেষণা পর্যালোচনা করে নরওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তর প্রধান হেন্স অলাভ হেগান জানান, তাপদাহের পরিধি বাড়ছে বাংলাদেশে। যা আগামীতে আরও তীব্র হবে।

হেগান বলেন, ‘বর্ষা ও তাপমাত্রার তারতাম্য বাংলাদেশের কৃষির জন্য বড় হুমকির। এখান থেকে ভবিষ্যত পরিকল্পনা করতে হবে। কারণ একটি চরম উষ্ণ ভবিষ্যত অপেক্ষা করছে।’

শুধু বর্ষা নয়, শীতেও বেড়ে যাচ্ছে তাপমাত্রা। বেড়েছে মেঘাচ্ছন্ন দিনের পরিমাণ। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে প্রায় বছরজুড়ে বায়ুদূষণ।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন