ঢাকা ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে লক্ষমাত্রার চেয়ে অতিরিক্তি আমন রোপনে ব্যস্ত কৃষকেরা

দিনাজপুর জেলায় চলতি আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন চাষের সম্বাবনা রয়েছে । মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে এবারে আমন ধানের ফসল হবে বলে জানা গেছে। দিনাজপুর জেলা খাদ্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. নুরুজ্জামান মিয়া জানান, দেশের খাদ্য উৎপাদিত জেলা হিসেবে পরিচিত দিনাজপুরে এবারে কোন ধরনের বন্যা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ না থাকায় বাম্পার আমন ধান ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। তিনি জেলার বিভিন্ন এলাকার আগাম জাতের আমন ধান কর্তনের বিষয় সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন। এ সময় কৃষকদের সাথে কথা বলে তিনি আশ^স্ত হয়েছেন এবারে ধানের ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকেরা উৎফুল্ল প্রকাশ করেছেন। আগাম জাতের ধান কাটা মাড়াই শুরু হয়ে গেছে। কৃষি বিভাগের সরবরাহকৃত ধান কাটা ও মাড়াই মেশিন দিয়ে ধান কর্তন ও মাড়াইয়ের কাজ করতে কৃষকদের উৎসাহ দেয়া হচ্ছে। অত্যাধুনিক মেশিনে জমির ক্ষেতেই ধান কাটা ও মাড়াই ওই মেশিন দ্বারা একই সাথে সম্পন্ন হওয়ায় ধানের মান ভালো হচ্ছে। ওই ধান বাজারে চাহিদা বেশি রয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি জানান। দেশের সিংহভাগ ধান উৎপাদন হয়ে থাকে এই জেলায়। চলতি বছর আমন ধানের ভাল ফলন হয়েছে। জেলার ১৩ উপজেলায় শুরু হয়েছে আমন ধান রোপন। এ বছর ২ লাখ ৭১ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ অর্জিত হয়ে মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান । ইরি বোরো মৌসুমে ধানের ফলন ভাল ও দাম মনোঃপুত হওয়ায়, চলতি আমন মৌসুমে কৃষকরা বেশি করে আমন ধান চাষ করবেন। তাই কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। দিনাজপুর আ লিক কৃষি অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ শামীম আশরাফ জানান, চলতি আমন মৌসুমে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ অর্জিত হয়ে মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে এবারে আমন ধানের ফসল চাষাবাদ হবে। দিনাজপুর আউলিয়াপুর গ্রামের কৃষক আমজাত হোসেন বলেন, এ বছর ইরি বোরো ধান আবাদ করে আমরা লাভবান হয়েছি। এক দিকে ধানের ফলন ভাল হয়েছে, অপরদিকে ন্যায্য মূল্য পাচ্ছি। এবার উৎপাদিত ধান জেলার চাহিদা র্পূরণ করে জেলা বাহিরে চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। দিনাজপুর কৃষি অধিদপ্তরের সুত্রটি জানায়, বিগত সময় জেলায় উৎপাদিত ধানের অর্ধেক এই জেলার খাদ্যের চাহিদা পূরণ করত। এবারে গত ইরি-বোরো এবং চলতি আমন মৌসুমে বাম্পার ফলন উৎপাদিত হলে অর্ধেকের বেশি উৎপাদিত চাল দেশের অন্য জেলায় চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে।
নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

ধারণা ছিল একটা আঘাত আসবে: প্রধানমন্ত্রী

দিনাজপুরে লক্ষমাত্রার চেয়ে অতিরিক্তি আমন রোপনে ব্যস্ত কৃষকেরা

প্রকাশিত সময় :- ০৬:৫০:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই ২০২৩

দিনাজপুর জেলায় চলতি আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন চাষের সম্বাবনা রয়েছে । মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে এবারে আমন ধানের ফসল হবে বলে জানা গেছে। দিনাজপুর জেলা খাদ্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. নুরুজ্জামান মিয়া জানান, দেশের খাদ্য উৎপাদিত জেলা হিসেবে পরিচিত দিনাজপুরে এবারে কোন ধরনের বন্যা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ না থাকায় বাম্পার আমন ধান ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। তিনি জেলার বিভিন্ন এলাকার আগাম জাতের আমন ধান কর্তনের বিষয় সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন। এ সময় কৃষকদের সাথে কথা বলে তিনি আশ^স্ত হয়েছেন এবারে ধানের ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকেরা উৎফুল্ল প্রকাশ করেছেন। আগাম জাতের ধান কাটা মাড়াই শুরু হয়ে গেছে। কৃষি বিভাগের সরবরাহকৃত ধান কাটা ও মাড়াই মেশিন দিয়ে ধান কর্তন ও মাড়াইয়ের কাজ করতে কৃষকদের উৎসাহ দেয়া হচ্ছে। অত্যাধুনিক মেশিনে জমির ক্ষেতেই ধান কাটা ও মাড়াই ওই মেশিন দ্বারা একই সাথে সম্পন্ন হওয়ায় ধানের মান ভালো হচ্ছে। ওই ধান বাজারে চাহিদা বেশি রয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি জানান। দেশের সিংহভাগ ধান উৎপাদন হয়ে থাকে এই জেলায়। চলতি বছর আমন ধানের ভাল ফলন হয়েছে। জেলার ১৩ উপজেলায় শুরু হয়েছে আমন ধান রোপন। এ বছর ২ লাখ ৭১ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ অর্জিত হয়ে মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান । ইরি বোরো মৌসুমে ধানের ফলন ভাল ও দাম মনোঃপুত হওয়ায়, চলতি আমন মৌসুমে কৃষকরা বেশি করে আমন ধান চাষ করবেন। তাই কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। দিনাজপুর আ লিক কৃষি অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ শামীম আশরাফ জানান, চলতি আমন মৌসুমে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ অর্জিত হয়ে মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে এবারে আমন ধানের ফসল চাষাবাদ হবে। দিনাজপুর আউলিয়াপুর গ্রামের কৃষক আমজাত হোসেন বলেন, এ বছর ইরি বোরো ধান আবাদ করে আমরা লাভবান হয়েছি। এক দিকে ধানের ফলন ভাল হয়েছে, অপরদিকে ন্যায্য মূল্য পাচ্ছি। এবার উৎপাদিত ধান জেলার চাহিদা র্পূরণ করে জেলা বাহিরে চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। দিনাজপুর কৃষি অধিদপ্তরের সুত্রটি জানায়, বিগত সময় জেলায় উৎপাদিত ধানের অর্ধেক এই জেলার খাদ্যের চাহিদা পূরণ করত। এবারে গত ইরি-বোরো এবং চলতি আমন মৌসুমে বাম্পার ফলন উৎপাদিত হলে অর্ধেকের বেশি উৎপাদিত চাল দেশের অন্য জেলায় চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে।
নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন