ঢাকা ০২:১৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিঘলিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোর্শেদ মাসুমের বিকল্প নেই

আসন্ন দিঘলিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যুবনেতা সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুমকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান দিঘলিয়ার সর্বস্তরের মানুষ। সময়ের বাস্তবতায় তিনিই হতে পারেন আসন্ন উপজেলা নির্বাচনের ভাইস চেয়ারম্যান এমন গুঞ্জনই এখন সাধারণ জণগনের মুখে মুখে। এমন লক্ষ্য কে সামনে রেখেই দিঘলিয়া উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিকভাবে প্রচার প্রচারণা করে যাচ্ছে বলে জানান যুবলীগের এ নেতা।

দিঘলিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকার স্থানীয়জনগণ, জনপ্রতিনিধিসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও তাদের সহযোগী সংগঠনের নতুন প্রজন্মের নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন, এলাকাবাসীর অত্যন্ত আস্থাভাজন ও তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হিসেবে সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুম আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে তার মতো আমজনতার মাঝে সমাদৃত ও গ্রহণযোগ্য বিকল্প কোন প্রার্থী নাই।

জানতে চাইলে, দিঘলিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষ বলেন, প্রার্থী কে হবেন, কাকে দিচ্ছেন বা কি হবে তা জানা নেই, তবে শুনেছি যুবলীগের নেতা জামিল মোর্শেদ মাসুম প্রার্থী হতে পারেন। তাকে যুবলীগ থেকে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে। ব্যক্তি হিসেবে ও মনের দিক থেকে তিনি বড় মাপের মানুষ। তিনি প্রার্থী হলে তাকে দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ তাকে এবার বিজয়ী করবেন বলে বেশিরভাগ লোকের মন্তব্য।

দিঘলিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষ নানা কারণে পরিবর্তন ও নতুনত্ব চায়। এই পরিবর্তন ঘটাতে এবারের যোগ্য নেতা হিসেবে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুমের কথা বলছে উপজেলাবাসী। তাদের বিশ্বাস তিনি যদি প্রার্থী হন তাহলে দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন। যুক্তি হিসেবে বলেন, দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ সচেতন তারুণ্যকে পছন্দ করে, পেশী শক্তিকে বয়কট করে।

জনবান্ধব যুবলীগ নেতা হিসেবে জামিল মোর্শেদ মাসুমের যেমন ৬টি ইউনিয়নেই তার বিচরণ ও পরিচিতি রয়েছে তেমনি জনপ্রিয়তাও রয়েছে প্রচুর। সার্বিক বিবেচনায় জনগণের মতামতে এবারের নির্বাচনে জামিল মোর্শেদ মাসুমকে মানুষ বেশি ভালোবাসবে তাই সবাই চান তিনি যেন প্রার্থী হন। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোর্শেদ মাসুম প্রার্থী হলে তিনিই বিজয়ী হবেন, এমন কথাই শোনা যাচ্ছে উপজেলার সব ইউনিয়নে।

সাধারণ মানুষের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, “মাসুম যদি প্রার্থী হন সেটা সাধারণ মানুষের জন্য যেমন ভালো তেমনি দলের জন্যও ভালো। আমরা তার জন্য শুভকামনা করি।” তারা আরও বলেন আমাদের জানামতে উনি এলাকায় খুবই জনপ্রিয়। আমাদের যুবলীগের কাছে, যুবসমাজের মাঝেও একজন প্রিয় ব্যক্তি তিনি। কর্মি বান্ধব ও দক্ষ যুব নেতা হিসেবে পরিপক্বতার পরিচয় আছে মাসুমের।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে দিঘলিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হবেন কিনা জানতে চাইলে যুবলীগ নেতা মাসুম বলেন, আমি দীর্ঘদিন ছাত্রাবস্থা থেকে এ পর্যন্ত রাজনীতি করে আসছি। প্রত্যেক রাজনীতিকের একটা উদ্দেশ্য থাকে তাহলো জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের সেবা করা। তা আমারমাঝেও আছে। দল, এলাকার মানুষ এবং সর্বস্তরের মানুষ চাইলে এবার আমি প্রার্থী হবো ইনশাআল্লাহ। আসলে রাজনীতি থেকে নিজের জন্য চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। যে সকল মানুষের জন্য রাজনীতি করি তারা যদি মনে করে আমাকে দিয়ে উন্নয়ন করা সম্ভব তাহলে প্রার্থী হতে আমার কোন আপত্তি নাই। অনেকেই নির্বাচনের আগে উন্নয়নের বানী শোনায় কিন্তু নির্বাচন শেষে সেটা ভুলে যায়। আমি ব্যক্তিগত ভাবে কোন প্রতিশ্রুতির বুলি দিতে চাই না শুধু কাজে প্রমাণ করবো ইনশাআল্লাহ।
এই মাসুম উপজেলা বাসির কাছে করোনা যোদ্ধা হিসেবে পরিচিত, করোনা কালীন সময় বিভিন্ন হাট বাজারে মাস্ক বিতরণ, করোনা রোগীর বাড়ি প্রয়োজনীয় ঔষধ, খাবার ও ফলমূল সরবরাহ করেছেন। মাননীয় সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী এমপির প্রদত্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে শ্বাসকষ্ট আক্রান্ত রোগীদের বাড়ি বাড়ি যেয়ে অক্সিজেন সরবরাহ করেছেন।

আরও পড়ুন>>এবার রেকর্ড উচ্চতায় স্বর্ণের দাম

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নামাজের সময়সূচি: ২২ মে ২০২৪

দিঘলিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোর্শেদ মাসুমের বিকল্প নেই

প্রকাশিত সময় :- ০৭:৩৯:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

আসন্ন দিঘলিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যুবনেতা সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুমকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান দিঘলিয়ার সর্বস্তরের মানুষ। সময়ের বাস্তবতায় তিনিই হতে পারেন আসন্ন উপজেলা নির্বাচনের ভাইস চেয়ারম্যান এমন গুঞ্জনই এখন সাধারণ জণগনের মুখে মুখে। এমন লক্ষ্য কে সামনে রেখেই দিঘলিয়া উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিকভাবে প্রচার প্রচারণা করে যাচ্ছে বলে জানান যুবলীগের এ নেতা।

দিঘলিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকার স্থানীয়জনগণ, জনপ্রতিনিধিসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও তাদের সহযোগী সংগঠনের নতুন প্রজন্মের নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন, এলাকাবাসীর অত্যন্ত আস্থাভাজন ও তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হিসেবে সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুম আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে তার মতো আমজনতার মাঝে সমাদৃত ও গ্রহণযোগ্য বিকল্প কোন প্রার্থী নাই।

জানতে চাইলে, দিঘলিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষ বলেন, প্রার্থী কে হবেন, কাকে দিচ্ছেন বা কি হবে তা জানা নেই, তবে শুনেছি যুবলীগের নেতা জামিল মোর্শেদ মাসুম প্রার্থী হতে পারেন। তাকে যুবলীগ থেকে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে। ব্যক্তি হিসেবে ও মনের দিক থেকে তিনি বড় মাপের মানুষ। তিনি প্রার্থী হলে তাকে দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ তাকে এবার বিজয়ী করবেন বলে বেশিরভাগ লোকের মন্তব্য।

দিঘলিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষ নানা কারণে পরিবর্তন ও নতুনত্ব চায়। এই পরিবর্তন ঘটাতে এবারের যোগ্য নেতা হিসেবে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোরশেদ মাসুমের কথা বলছে উপজেলাবাসী। তাদের বিশ্বাস তিনি যদি প্রার্থী হন তাহলে দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন। যুক্তি হিসেবে বলেন, দিঘলিয়া উপজেলার মানুষ সচেতন তারুণ্যকে পছন্দ করে, পেশী শক্তিকে বয়কট করে।

জনবান্ধব যুবলীগ নেতা হিসেবে জামিল মোর্শেদ মাসুমের যেমন ৬টি ইউনিয়নেই তার বিচরণ ও পরিচিতি রয়েছে তেমনি জনপ্রিয়তাও রয়েছে প্রচুর। সার্বিক বিবেচনায় জনগণের মতামতে এবারের নির্বাচনে জামিল মোর্শেদ মাসুমকে মানুষ বেশি ভালোবাসবে তাই সবাই চান তিনি যেন প্রার্থী হন। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে যুবলীগ নেতা সৈয়দ জামিল মোর্শেদ মাসুম প্রার্থী হলে তিনিই বিজয়ী হবেন, এমন কথাই শোনা যাচ্ছে উপজেলার সব ইউনিয়নে।

সাধারণ মানুষের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, “মাসুম যদি প্রার্থী হন সেটা সাধারণ মানুষের জন্য যেমন ভালো তেমনি দলের জন্যও ভালো। আমরা তার জন্য শুভকামনা করি।” তারা আরও বলেন আমাদের জানামতে উনি এলাকায় খুবই জনপ্রিয়। আমাদের যুবলীগের কাছে, যুবসমাজের মাঝেও একজন প্রিয় ব্যক্তি তিনি। কর্মি বান্ধব ও দক্ষ যুব নেতা হিসেবে পরিপক্বতার পরিচয় আছে মাসুমের।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে দিঘলিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হবেন কিনা জানতে চাইলে যুবলীগ নেতা মাসুম বলেন, আমি দীর্ঘদিন ছাত্রাবস্থা থেকে এ পর্যন্ত রাজনীতি করে আসছি। প্রত্যেক রাজনীতিকের একটা উদ্দেশ্য থাকে তাহলো জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের সেবা করা। তা আমারমাঝেও আছে। দল, এলাকার মানুষ এবং সর্বস্তরের মানুষ চাইলে এবার আমি প্রার্থী হবো ইনশাআল্লাহ। আসলে রাজনীতি থেকে নিজের জন্য চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। যে সকল মানুষের জন্য রাজনীতি করি তারা যদি মনে করে আমাকে দিয়ে উন্নয়ন করা সম্ভব তাহলে প্রার্থী হতে আমার কোন আপত্তি নাই। অনেকেই নির্বাচনের আগে উন্নয়নের বানী শোনায় কিন্তু নির্বাচন শেষে সেটা ভুলে যায়। আমি ব্যক্তিগত ভাবে কোন প্রতিশ্রুতির বুলি দিতে চাই না শুধু কাজে প্রমাণ করবো ইনশাআল্লাহ।
এই মাসুম উপজেলা বাসির কাছে করোনা যোদ্ধা হিসেবে পরিচিত, করোনা কালীন সময় বিভিন্ন হাট বাজারে মাস্ক বিতরণ, করোনা রোগীর বাড়ি প্রয়োজনীয় ঔষধ, খাবার ও ফলমূল সরবরাহ করেছেন। মাননীয় সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী এমপির প্রদত্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে শ্বাসকষ্ট আক্রান্ত রোগীদের বাড়ি বাড়ি যেয়ে অক্সিজেন সরবরাহ করেছেন।

আরও পড়ুন>>এবার রেকর্ড উচ্চতায় স্বর্ণের দাম

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন