ঢাকা ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ মুবারক

গাজায় নিহত মায়ের পেট থেকে উদ্ধার শিশুটি মারা গেছে

গাজায় নিহত মায়ের পেট থেকে উদ্ধার শিশুটি মারা গেছে

ইসরায়েলি বিমান হামলায় নিহত এক নারীর গর্ভ থেকে প্রসব করা একটি কন্যাশিশু জন্মের মাত্র কয়েক দিন পরেই মারা গেছে। গাজার একটি হাসপাতালে জন্ম হয়েছিল শিশুটির। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর রয়টার্সের।

শিশুটির নাম রাখা হয়েছে সাবরিন আল-রুহ। দ্বিতীয় নামের আরবি অর্থ ‘আত্মা’। তার মা সাবরিন আল-সাকানি (আল-শেখ) শনিবার রাতে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার দক্ষিণের শহর রাফাতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত হন।
শিশুটিকে তার মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়েছে।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত রোববার মধ্যরাতের পরপরই রাফার হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশু সাবরিন আল-সাকানিকে মায়ের পেট থেকে জীবিত উদ্ধার করেছিলেন চিকিৎসকরা।
শিশুটিকে অন্যান্য শিশুদের সঙ্গে ইনকিউবেটরে রাখা হয়েছিল। তার কোমরে একটি টেপ বেঁধে রাখা হয়। এতে লেখা হয় ‘শহীদ সাবরিন আল-সাকানির সন্তান।’
চিকিৎসকরা সে সময়ই শিশুটির অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছিলেন। ১ দশমিক ৪ কেজি ওজনের এই শিশু অপরিণত অবস্থায় জন্ম নেওয়ায় তার শ্বাসপ্রশ্বাসে মারাত্মক সমস্যা ছিল।
হাসপাতালে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও চিকিৎসকরা শিশুটিকে বাঁচানোর জন্য লড়াই করেছেন। হাত পাম্প ব্যবহার করে তার ফুসফুসে বাতাস পৌঁছানোর চেষ্টা করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। মৃত্যুবরণ করেছে শিশুটি।

গত সপ্তাহে শনিবার রাতে রাফাহের দুটো বাড়িতে ইসরায়েলের বিমান হামলায় নিহত হয়েছিলেন ১৯ ফিলিস্তিনি। তাদের মধ্যে শিশু সাবরিনের মা সাবরিন আল-সাকানিও ছিলেন। মৃত্যুর সময় তিনি সাড়ে ৭ মাসের অন্তঃস্বত্তা ছিলেন। ওই হামলায় বেশ কিছু শিশুও মারা গিয়েছিল। তার মধ্যে এবার যোগ হল শিশু সাবরিনও।

মোঃ নজরুল ইসলাম/নিবি

 

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

কুড়িগ্রামে তিনদিন ব্যাপী শিক্ষকদের ইনহাউজ প্রশিক্ষণ

গাজায় নিহত মায়ের পেট থেকে উদ্ধার শিশুটি মারা গেছে

প্রকাশিত সময় :- ০৮:২৩:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

ইসরায়েলি বিমান হামলায় নিহত এক নারীর গর্ভ থেকে প্রসব করা একটি কন্যাশিশু জন্মের মাত্র কয়েক দিন পরেই মারা গেছে। গাজার একটি হাসপাতালে জন্ম হয়েছিল শিশুটির। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর রয়টার্সের।

শিশুটির নাম রাখা হয়েছে সাবরিন আল-রুহ। দ্বিতীয় নামের আরবি অর্থ ‘আত্মা’। তার মা সাবরিন আল-সাকানি (আল-শেখ) শনিবার রাতে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার দক্ষিণের শহর রাফাতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত হন।
শিশুটিকে তার মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়েছে।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত রোববার মধ্যরাতের পরপরই রাফার হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশু সাবরিন আল-সাকানিকে মায়ের পেট থেকে জীবিত উদ্ধার করেছিলেন চিকিৎসকরা।
শিশুটিকে অন্যান্য শিশুদের সঙ্গে ইনকিউবেটরে রাখা হয়েছিল। তার কোমরে একটি টেপ বেঁধে রাখা হয়। এতে লেখা হয় ‘শহীদ সাবরিন আল-সাকানির সন্তান।’
চিকিৎসকরা সে সময়ই শিশুটির অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছিলেন। ১ দশমিক ৪ কেজি ওজনের এই শিশু অপরিণত অবস্থায় জন্ম নেওয়ায় তার শ্বাসপ্রশ্বাসে মারাত্মক সমস্যা ছিল।
হাসপাতালে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও চিকিৎসকরা শিশুটিকে বাঁচানোর জন্য লড়াই করেছেন। হাত পাম্প ব্যবহার করে তার ফুসফুসে বাতাস পৌঁছানোর চেষ্টা করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। মৃত্যুবরণ করেছে শিশুটি।

গত সপ্তাহে শনিবার রাতে রাফাহের দুটো বাড়িতে ইসরায়েলের বিমান হামলায় নিহত হয়েছিলেন ১৯ ফিলিস্তিনি। তাদের মধ্যে শিশু সাবরিনের মা সাবরিন আল-সাকানিও ছিলেন। মৃত্যুর সময় তিনি সাড়ে ৭ মাসের অন্তঃস্বত্তা ছিলেন। ওই হামলায় বেশ কিছু শিশুও মারা গিয়েছিল। তার মধ্যে এবার যোগ হল শিশু সাবরিনও।

মোঃ নজরুল ইসলাম/নিবি