ঢাকা ০২:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে নারী লিপসু সাবেক সেনা সদস্য সালাউদ্দিন জেলা হাজতে

কুড়িগ্রামের উলিপুরে কথিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নারী লিপসু সাবেক সেনা সদস্য সালাউদ্দিন পার্শ্ববর্তী এক নারীর সাথে পরকীয়া প্রেমে ইয়ে করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হয়ে এখন জেল হাজতে।
আটকের পর এলাকার উ‌ৎসুক শতাধিক নারী ও পুরুষের রোষানালে পরে সালাউদ্দিন। নারী লিপসু সালাউদ্দিনকে স্থানীয় জনতা আটক করে উত্তম মধ্যম দিয়ে ওই নারীর ঘরে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে।
ঘটনাটি ঘটেছে, গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের দড়ি কিশোরপুর গ্রামে l ঘটনাটি মুহূর্তে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তা টক অফ দা টাউনে পরিণত হয়। কথিত ওই ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নারী লিপ্সু লম্পট সালাউদ্দিন কে দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার নারী পুরুষ ওই বাড়িতে ভিড় জমায়। উপস্থিত মানুষজন ওই নারীর সাথে সালাউদ্দিনের বিয়ে চাই বিয়ে চাই বলে মিছিলে মিছিলে স্লোগান তোলেন।আবার কেউ কেউ চায় থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করতে l খবর পেয়ে উলিপুর থানা পুলিশ, একদল সাংবাদিকের উপস্থিতিতে জনতার হাতে আটকের ৬ ঘন্টা পর পুলিশ সালাউদ্দিনকে থানায় নিয়ে আসে l এ ঘটনায় ওই নারী উলিপুর থানায় হাজির হয়ে রাতেই সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে l
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, এক যুগ আগে বিবাহিত এক সন্তানের জননী ওই নারীর সাথে ৫/৬ মাস ধরে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পরে সালাউদ্দিন l
পরকীয়ায় জড়িত ওই নারী জানান সালাউদ্দিনের সাথে ঘর বাঁধতে স্বামী সন্তান ছেড়ে ঢাকার কোন এক জায়গায় বাসা ভাড়া নিয়ে এক মাস অবৈধভাবে স্বামী স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে বসবাস করেছে বলে সাংবাদিকদের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে l
এরপর চতুর ওই প্রতারক নারী লিপ্সু সালাউদ্দিন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তাকে বিয়ে করবে বলে শান্তনা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় l
স্বামীর অনুপস্থিতিতে রাতের আঁধারে ৩ পুত্র সন্তানের জনক সালাউদ্দিন নিয়মিত ওই নারীর সাথে অবৈধ মেলামেশা করে আসছিলো l
একটি সূত্র জানায়, বেপরোয়া সালাউদ্দিন পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ার পর থেকেই স্ত্রী সন্তানদের প্রতি রূঢ় ও মারমূখী আচরণ করে আসছে lএমনকি সালাউদ্দিন তার বৃদ্ধ মা-বাবাকেও প্রহার করত বলে এলাকাবাসী জানায় l সালাউদ্দিন উপজেলার ক্ষেত্রে ইউনিয়নের দড়ি কিশোর পুর গ্রামের সেকেন্দার আলী ছেলে।
উলিপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ গোলাম মর্তুজা জানান, বাদীর মেডিকেল রিপোর্টের জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে আর সালাউদ্দিনকে কুড়িগ্রাম জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে l

নিউজবিজয়/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

নেপালে ভূমিধসে নদীতে পড়ল দুই বাস, নিখোঁজ ৬৩

কুড়িগ্রামের উলিপুরে নারী লিপসু সাবেক সেনা সদস্য সালাউদ্দিন জেলা হাজতে

প্রকাশিত সময় :- ০৮:০০:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ নভেম্বর ২০২৩

কুড়িগ্রামের উলিপুরে কথিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নারী লিপসু সাবেক সেনা সদস্য সালাউদ্দিন পার্শ্ববর্তী এক নারীর সাথে পরকীয়া প্রেমে ইয়ে করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হয়ে এখন জেল হাজতে।
আটকের পর এলাকার উ‌ৎসুক শতাধিক নারী ও পুরুষের রোষানালে পরে সালাউদ্দিন। নারী লিপসু সালাউদ্দিনকে স্থানীয় জনতা আটক করে উত্তম মধ্যম দিয়ে ওই নারীর ঘরে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে।
ঘটনাটি ঘটেছে, গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের দড়ি কিশোরপুর গ্রামে l ঘটনাটি মুহূর্তে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তা টক অফ দা টাউনে পরিণত হয়। কথিত ওই ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নারী লিপ্সু লম্পট সালাউদ্দিন কে দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার নারী পুরুষ ওই বাড়িতে ভিড় জমায়। উপস্থিত মানুষজন ওই নারীর সাথে সালাউদ্দিনের বিয়ে চাই বিয়ে চাই বলে মিছিলে মিছিলে স্লোগান তোলেন।আবার কেউ কেউ চায় থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করতে l খবর পেয়ে উলিপুর থানা পুলিশ, একদল সাংবাদিকের উপস্থিতিতে জনতার হাতে আটকের ৬ ঘন্টা পর পুলিশ সালাউদ্দিনকে থানায় নিয়ে আসে l এ ঘটনায় ওই নারী উলিপুর থানায় হাজির হয়ে রাতেই সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে l
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, এক যুগ আগে বিবাহিত এক সন্তানের জননী ওই নারীর সাথে ৫/৬ মাস ধরে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পরে সালাউদ্দিন l
পরকীয়ায় জড়িত ওই নারী জানান সালাউদ্দিনের সাথে ঘর বাঁধতে স্বামী সন্তান ছেড়ে ঢাকার কোন এক জায়গায় বাসা ভাড়া নিয়ে এক মাস অবৈধভাবে স্বামী স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে বসবাস করেছে বলে সাংবাদিকদের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে l
এরপর চতুর ওই প্রতারক নারী লিপ্সু সালাউদ্দিন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তাকে বিয়ে করবে বলে শান্তনা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় l
স্বামীর অনুপস্থিতিতে রাতের আঁধারে ৩ পুত্র সন্তানের জনক সালাউদ্দিন নিয়মিত ওই নারীর সাথে অবৈধ মেলামেশা করে আসছিলো l
একটি সূত্র জানায়, বেপরোয়া সালাউদ্দিন পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ার পর থেকেই স্ত্রী সন্তানদের প্রতি রূঢ় ও মারমূখী আচরণ করে আসছে lএমনকি সালাউদ্দিন তার বৃদ্ধ মা-বাবাকেও প্রহার করত বলে এলাকাবাসী জানায় l সালাউদ্দিন উপজেলার ক্ষেত্রে ইউনিয়নের দড়ি কিশোর পুর গ্রামের সেকেন্দার আলী ছেলে।
উলিপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ গোলাম মর্তুজা জানান, বাদীর মেডিকেল রিপোর্টের জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে আর সালাউদ্দিনকে কুড়িগ্রাম জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে l

নিউজবিজয়/এফএইচএন