একদিন আগে ১০ জেলায় ১৬ ভোটকেন্দ্রে আগুন » NewsBijoy24 । Online Newspaper of Bangladesh.
ঢাকা ০৪:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

একদিন আগে ১০ জেলায় ১৬ ভোটকেন্দ্রে আগুন

  • নিউজ বিজয় ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময় :- ০২:০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
  • ২৭৫ পড়া হয়েছে। নিউজবিজয় ২৪.কম-১৫ ডিসেম্বরে ৯ বছরে পর্দাপন

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের একদিন আগে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ভোটকেন্দ্রে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাত থেকে শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত এইসব অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে বলে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে জানা যায়। এর মধ্যে রাজশাহী ৪টি, গাজীপুরে ২টি, মৌলভীবাজারে ২টি, খুলনায় ২টি ও শরীয়পুর, ময়মনসিংহ ফেনী, হবিগঞ্জ, শেরপুর এবং টাঙ্গাইলে ১টি করে ভোটকেন্দ্র রয়েছে।

গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে গাজীপুরে ভোটকেন্দ্রসহ ২ স্কুলে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। জানা গেছে, গাজীপুর মহানগরের ওয়্যারলেস গেইট এলাকায় টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এবং পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র।

এলাকাবাসীরা জানান, রাত সোয়া ১টার দিকে দুর্বৃত্তরা গাজীপুর মহানগরের পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অফিস কক্ষের একটি জানালা দিয়ে ভেতরে থাকা আলমারীতে পেট্রোল ও আগুন ছুঁড়ে পালিয়ে যায়। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জয়দেবপুর ফায়ার স্টেশন ও গাজীপুর-চৌরাস্তা মডার্ন ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা গিয়ে আগুন নেভান। আগুনে আলমারিতে থাকা বইপত্র ও প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র পুড়ে গেছে।

এদিকে টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ওসমান আলী জানান, রাত আড়াইটার দিকে নাইট গার্ড মো. আফাজ উদ্দিন অগ্নিকাণ্ডের খবর দেন। পরে তিনি স্থানীয় ফায়ার স্টেশনসহ এলাকার লোকজন নিয়ে স্কুলে যান। অল্প সময়ের মধ্যে আগুন নয়টি কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। এসব কক্ষে থাকা চারটি কম্পিউটার, পাঁচটি ট্যাব, একটি টেলিভিশন, চারটি আলমারি, ১৫টি ওয়াল ক্যাবিনেটসহ বিভিন্ন জরুরি কাগজপত্র ও মূল্যবান মালামাল পুড়ে গেছে। গত জাতীয় সংসদ ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এখানে ভোটকেন্দ্র থাকলেও এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এখানে কেন্দ্র স্থাপন করা হয়নি বলেও জানান তিনি।

ভোটেকেন্দ্রে আগুন

গাজীপুর-চৌরাস্তা মডার্ন ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. রুহুল আমিন মোল্লা জানান, ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিটের কর্মীরা প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের এবং এক ঘণ্টার চেষ্টায় পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আগুন নেভাতে সক্ষম হন।

শরীয়তপুর প্রতিনিধির পাঠানো খবরে জানা গেছে, জেলার নড়িয়া উপজেলার চরমোহন সুরেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে বিদ্যালয়ের তিনটি বেঞ্চ পুড়ে গেছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসী সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। শুক্রবার দিবাগত রাতে (৫ জানুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে।

ঘড়িষার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুর রব খান বলেন, শুক্রবার গভীর রাতে একদল দুর্বৃত্তরা নড়িয়া উপজেলার ঘড়িষার ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ৬৫নং চরমোহন সুরেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে জানালা দিয়ে আগুন দেয়। আগুনে তিনটি বেঞ্চ পুড়ে যায়। আমরা জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি।

ভোটেকেন্দ্রে আগুন

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুল আলম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এই মূহুর্তে বিস্তারিত বলতে পারছি না।

খুলনার প্রতিনিধি জানান, জেলার ডুমুরিয়া ও রূপসা উপজেলার দুই স্কুলে আগুন দিয়েছে দৃর্বৃত্তরা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এসব ঘটনা ঘটে। ডুমুরিয়া থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ভোটকেন্দ্র ভেবে ডুমুরিয়ার খর্ণিয়া ইউনিয়নের টিপনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুর্বৃত্তরা ভোট কেন্দ্র ভেবে অগ্নিসংযোগ করে। এতে বিদ্যালয়ের লাইব্রেরির একটি কক্ষ পুড়ে যায়।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকান্ত সাহা বলেন, অগ্নিকাণ্ডে বিদ্যালয়টির সামান্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে ওই বিদ্যালয়টি ভোট কেন্দ্র নয়।

অন্যদিকে খুলনার রূপসা উপজেলার বাগমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি ভোট কেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রূপসা থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাতে দুর্বৃত্তরা ওই বিদ্যালয়ে কেরোসিন সহকারে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। এ বিদ্যালয়টি একটি ভোটকেন্দ্র।

রূপসা থানার ওসি মোহাম্মদ শওকত কবীর বলেন, দুর্বৃত্তরা আগুন দেওয়ার চেষ্টা করেছিলো। তবে নৈশ প্রহরীর ডাক চিৎকারে তারা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলে। এখানে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

ময়মনসিংহের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পড়শীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ৪টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে বিদ্যালয়ের পেছনের জানালা দিয়ে পেট্রল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়। আধাপাকা এই বিদ্যালয় ভবনের চারটি কক্ষের ওপরের টিনের চালা আগুনে পুড়ে গেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

গফরগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, জরুরি সেবা ৯৯৯-এ খবর পেয়ে থানা পুলিশ ভোর ৫টার দিকে ঘটনাস্থলে যায়। র্যাব, বিজিবি, পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নির্বাচনবিরোধী নাশকতা মাথায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে।

ফেনীর প্রতিনিধি জানায়, ফেনীর সোনাগাজীতে একটি ভোটকেন্দ্রে পেট্টোল ঢেলে আগুন দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার ভোরে উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের চরসাহাভিকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সোনাগাজীতে ভোটকেন্দ্রে আগুন লাগার খবরে তাৎক্ষণিক ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ঘটনায় স্কুলের শিক্ষক মিলনায়তনের কক্ষের আলমিরায় থাকা ডকুমেন্ট, চেয়ার, টেবিল পুড়ে যায়।

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জেলার দুটি ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। ভোটকেন্দ্রগুলো হলো– কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সরিষকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মৌলভীবাজার সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের সাবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এসব ভোটকেন্দ্রে আগুন দেওয়া হয়। মুন্সীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমেদ তরফদার বলেন, ‘রাতে হঠাৎ আগুন দেখতে পায় এলাকার লোকজন। পরে আমিসহ অন্যরা মিলে আগুন নেভাই। কারা আগুন দিয়েছে তা জানা যায়নি।’

কমলগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘আগুনের খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছি। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হচ্ছে, তদন্ত চলছে।’

শুক্রবার মধ্যরাতে সাবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুর গফফর বাবলু বলেন, ‘আমাদের স্কুলে একজন নৈশ প্রহরী ছিল। সেখানে গ্রাম পুলিশও ছিল। আগুনে বিদ্যালয়ের শিক্ষক হলের কিছু যন্ত্রাংশ ও আসবাবপত্র পুড়ে গেছে।’

মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে কেরোসিন পাওয়া গেছে।’

হবিগঞ্জের প্রতিনিধি জানান, শুক্রবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌর এলাকার ধলাইপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আগুন লাগে। খবর পেয়ে চুনারুঘাট ফায়ার সার্ভিস ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা রায়হানা বলেন, ‘এখনো কোনো কেন্দ্রে ভোটগ্রহণের সরঞ্জাম পৌঁছেনি। তবে শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে। কে বা কারা আগুন দিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।’

রাজশাহী প্রতিনিধির পাঠানো খবরে জানা গেছে, রাজশাহীর তিন উপজেলায় চারটি ভোটকেন্দ্রে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর বাঘা, বাগমারা ও মোহনপুর উপজেলায় বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) রাতে এসব ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে বাগমারার ভোটকেন্দ্রটি থেকে দুটি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কেন্দ্র চারটি হলো- বাঘা উপজেলার জুতনশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আড়ানী ঝিনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোহনপুরের মতিহার উচ্চ বিদ্যালয় এবং বাগমারার আক্কেলপুর উচ্চ বিদ্যালয়।

শেরপুর প্রতিনিধি জানান, শেরপুর সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকালে সদর উপজেলার মির্জাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অগ্নিকান্ডের কারণ এখনও জানা যায়নি।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা জানান, ভোরে সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্র মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্টোররুমে আগুন জ্বলতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে বিদ্যালয়ের স্টোররুমে থাকা কয়েকটি বেঞ্চ পুড়ে যায়।

শেরপুর সদর থানার ওসি এমদাদুল হক বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনাটি নাশকতা কি না, খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানিয়েছেন, শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকালে টাঙ্গাইল পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের কান্দিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রের পরিত্যক্ত ভবনের দরজায় অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। অগ্নিকান্ডে ভবনটির একটি দরজা পুরোপুরি ও অপর বকটি দরজা আংশিক পুড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমুল আনাম জানান, সকালে বিদ্যালয়ের নাইট গ্র্ড অগ্নিসংযোগের খবর দিলে বিদ্যা্লয়ে এসে দেখি বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের দুইটি দরজায় অগ্নিসংযোগে করা হয়েছে। স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলায় তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে। তবে কারা অগ্নিসংযোগ করেছে তা এখনো জানা যায়নি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ

রংপুরে চালককে হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই

Advertisement

একদিন আগে ১০ জেলায় ১৬ ভোটকেন্দ্রে আগুন

প্রকাশিত সময় :- ০২:০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের একদিন আগে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ভোটকেন্দ্রে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাত থেকে শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত এইসব অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে বলে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে জানা যায়। এর মধ্যে রাজশাহী ৪টি, গাজীপুরে ২টি, মৌলভীবাজারে ২টি, খুলনায় ২টি ও শরীয়পুর, ময়মনসিংহ ফেনী, হবিগঞ্জ, শেরপুর এবং টাঙ্গাইলে ১টি করে ভোটকেন্দ্র রয়েছে।

গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে গাজীপুরে ভোটকেন্দ্রসহ ২ স্কুলে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। জানা গেছে, গাজীপুর মহানগরের ওয়্যারলেস গেইট এলাকায় টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এবং পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র।

এলাকাবাসীরা জানান, রাত সোয়া ১টার দিকে দুর্বৃত্তরা গাজীপুর মহানগরের পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অফিস কক্ষের একটি জানালা দিয়ে ভেতরে থাকা আলমারীতে পেট্রোল ও আগুন ছুঁড়ে পালিয়ে যায়। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জয়দেবপুর ফায়ার স্টেশন ও গাজীপুর-চৌরাস্তা মডার্ন ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা গিয়ে আগুন নেভান। আগুনে আলমারিতে থাকা বইপত্র ও প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র পুড়ে গেছে।

এদিকে টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ওসমান আলী জানান, রাত আড়াইটার দিকে নাইট গার্ড মো. আফাজ উদ্দিন অগ্নিকাণ্ডের খবর দেন। পরে তিনি স্থানীয় ফায়ার স্টেশনসহ এলাকার লোকজন নিয়ে স্কুলে যান। অল্প সময়ের মধ্যে আগুন নয়টি কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। এসব কক্ষে থাকা চারটি কম্পিউটার, পাঁচটি ট্যাব, একটি টেলিভিশন, চারটি আলমারি, ১৫টি ওয়াল ক্যাবিনেটসহ বিভিন্ন জরুরি কাগজপত্র ও মূল্যবান মালামাল পুড়ে গেছে। গত জাতীয় সংসদ ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এখানে ভোটকেন্দ্র থাকলেও এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এখানে কেন্দ্র স্থাপন করা হয়নি বলেও জানান তিনি।

ভোটেকেন্দ্রে আগুন

গাজীপুর-চৌরাস্তা মডার্ন ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. রুহুল আমিন মোল্লা জানান, ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিটের কর্মীরা প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় টিঅ্যান্ডটি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের এবং এক ঘণ্টার চেষ্টায় পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আগুন নেভাতে সক্ষম হন।

শরীয়তপুর প্রতিনিধির পাঠানো খবরে জানা গেছে, জেলার নড়িয়া উপজেলার চরমোহন সুরেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে বিদ্যালয়ের তিনটি বেঞ্চ পুড়ে গেছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসী সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। শুক্রবার দিবাগত রাতে (৫ জানুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে।

ঘড়িষার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুর রব খান বলেন, শুক্রবার গভীর রাতে একদল দুর্বৃত্তরা নড়িয়া উপজেলার ঘড়িষার ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ৬৫নং চরমোহন সুরেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে জানালা দিয়ে আগুন দেয়। আগুনে তিনটি বেঞ্চ পুড়ে যায়। আমরা জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি।

ভোটেকেন্দ্রে আগুন

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুল আলম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এই মূহুর্তে বিস্তারিত বলতে পারছি না।

খুলনার প্রতিনিধি জানান, জেলার ডুমুরিয়া ও রূপসা উপজেলার দুই স্কুলে আগুন দিয়েছে দৃর্বৃত্তরা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এসব ঘটনা ঘটে। ডুমুরিয়া থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ভোটকেন্দ্র ভেবে ডুমুরিয়ার খর্ণিয়া ইউনিয়নের টিপনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুর্বৃত্তরা ভোট কেন্দ্র ভেবে অগ্নিসংযোগ করে। এতে বিদ্যালয়ের লাইব্রেরির একটি কক্ষ পুড়ে যায়।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকান্ত সাহা বলেন, অগ্নিকাণ্ডে বিদ্যালয়টির সামান্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে ওই বিদ্যালয়টি ভোট কেন্দ্র নয়।

অন্যদিকে খুলনার রূপসা উপজেলার বাগমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি ভোট কেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রূপসা থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাতে দুর্বৃত্তরা ওই বিদ্যালয়ে কেরোসিন সহকারে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। এ বিদ্যালয়টি একটি ভোটকেন্দ্র।

রূপসা থানার ওসি মোহাম্মদ শওকত কবীর বলেন, দুর্বৃত্তরা আগুন দেওয়ার চেষ্টা করেছিলো। তবে নৈশ প্রহরীর ডাক চিৎকারে তারা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলে। এখানে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

ময়মনসিংহের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পড়শীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ৪টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে বিদ্যালয়ের পেছনের জানালা দিয়ে পেট্রল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়। আধাপাকা এই বিদ্যালয় ভবনের চারটি কক্ষের ওপরের টিনের চালা আগুনে পুড়ে গেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

গফরগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, জরুরি সেবা ৯৯৯-এ খবর পেয়ে থানা পুলিশ ভোর ৫টার দিকে ঘটনাস্থলে যায়। র্যাব, বিজিবি, পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নির্বাচনবিরোধী নাশকতা মাথায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে।

ফেনীর প্রতিনিধি জানায়, ফেনীর সোনাগাজীতে একটি ভোটকেন্দ্রে পেট্টোল ঢেলে আগুন দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার ভোরে উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের চরসাহাভিকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সোনাগাজীতে ভোটকেন্দ্রে আগুন লাগার খবরে তাৎক্ষণিক ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ঘটনায় স্কুলের শিক্ষক মিলনায়তনের কক্ষের আলমিরায় থাকা ডকুমেন্ট, চেয়ার, টেবিল পুড়ে যায়।

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জেলার দুটি ভোটকেন্দ্রে আগুন দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। ভোটকেন্দ্রগুলো হলো– কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সরিষকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মৌলভীবাজার সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের সাবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এসব ভোটকেন্দ্রে আগুন দেওয়া হয়। মুন্সীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমেদ তরফদার বলেন, ‘রাতে হঠাৎ আগুন দেখতে পায় এলাকার লোকজন। পরে আমিসহ অন্যরা মিলে আগুন নেভাই। কারা আগুন দিয়েছে তা জানা যায়নি।’

কমলগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘আগুনের খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছি। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হচ্ছে, তদন্ত চলছে।’

শুক্রবার মধ্যরাতে সাবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুর গফফর বাবলু বলেন, ‘আমাদের স্কুলে একজন নৈশ প্রহরী ছিল। সেখানে গ্রাম পুলিশও ছিল। আগুনে বিদ্যালয়ের শিক্ষক হলের কিছু যন্ত্রাংশ ও আসবাবপত্র পুড়ে গেছে।’

মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে কেরোসিন পাওয়া গেছে।’

হবিগঞ্জের প্রতিনিধি জানান, শুক্রবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌর এলাকার ধলাইপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আগুন লাগে। খবর পেয়ে চুনারুঘাট ফায়ার সার্ভিস ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা রায়হানা বলেন, ‘এখনো কোনো কেন্দ্রে ভোটগ্রহণের সরঞ্জাম পৌঁছেনি। তবে শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে। কে বা কারা আগুন দিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।’

রাজশাহী প্রতিনিধির পাঠানো খবরে জানা গেছে, রাজশাহীর তিন উপজেলায় চারটি ভোটকেন্দ্রে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর বাঘা, বাগমারা ও মোহনপুর উপজেলায় বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) রাতে এসব ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে বাগমারার ভোটকেন্দ্রটি থেকে দুটি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কেন্দ্র চারটি হলো- বাঘা উপজেলার জুতনশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আড়ানী ঝিনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোহনপুরের মতিহার উচ্চ বিদ্যালয় এবং বাগমারার আক্কেলপুর উচ্চ বিদ্যালয়।

শেরপুর প্রতিনিধি জানান, শেরপুর সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকালে সদর উপজেলার মির্জাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অগ্নিকান্ডের কারণ এখনও জানা যায়নি।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা জানান, ভোরে সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্র মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্টোররুমে আগুন জ্বলতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে বিদ্যালয়ের স্টোররুমে থাকা কয়েকটি বেঞ্চ পুড়ে যায়।

শেরপুর সদর থানার ওসি এমদাদুল হক বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনাটি নাশকতা কি না, খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানিয়েছেন, শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকালে টাঙ্গাইল পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের কান্দিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রের পরিত্যক্ত ভবনের দরজায় অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। অগ্নিকান্ডে ভবনটির একটি দরজা পুরোপুরি ও অপর বকটি দরজা আংশিক পুড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমুল আনাম জানান, সকালে বিদ্যালয়ের নাইট গ্র্ড অগ্নিসংযোগের খবর দিলে বিদ্যা্লয়ে এসে দেখি বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের দুইটি দরজায় অগ্নিসংযোগে করা হয়েছে। স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলায় তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে। তবে কারা অগ্নিসংযোগ করেছে তা এখনো জানা যায়নি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন