ঢাকা ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা পরিচলনা করলেন, নিলেন নৈশ্য প্রহরী

দিনাজপুরের হাকিমপুরে শিক্ষার্থীদের আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতায় শিক্ষক উপস্থিত না থেকে নৈশপ্রহরীর দ্বারা পরিচালনা করা হয়েছে। এক অভিভাবক বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে বলতে গেলে উল্টো লা নার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, আজ শনিবার উপজেলার ছাতনী রাউতারা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা চলছিল। ক্রিয়া প্রতিযোগীতাটি ওই স্কুলের নৈশ্য প্রহরী হাশের আলী পরিচালনা করছিল। সেখানে কোন শিক্ষক না থাকায় বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। এ অবস্থা দেখার পর মুসা মিয়া নামের এক অভিভাবক ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুলতানা পারভিনকে বলতে গেলে সেটির ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো তাকে গালিগালাজ করে বের করে দেয়। ]

মুসা মিয়া নামের ওই অভিভবক বলেন, স্কুলে মেয়েকে টিফিনের টাকা দিতে যাই। দেখতে পারি স্কুলমাঠে আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা চলছে। সেখানে কোন শিক্ষক উপস্থিত নেই। সেখানে নৈশ্য প্রহরী হাসেম আলী খেলা পরিচালনা করছে। এতে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। বিষয়টি প্রধান শিক্ষক সুলতানা পারভিনকে বললে উল্টো তুমি বলার কে। সেটা আমি দেখবো। ইত্যাদি বলে বের করে দেয়। তিনি আরোও বলেন, বৃহস্পতিবার মেয়েকে স্কুলে দেখতে গেলে জানতে পারে একটিও ক্লাস হয়নি। বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে বললে ক্লায় হয়নি তো কি হয়েছে তোমার কি করার আছে করো বলে গালিগালাজ করে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘ ১৯ বছর এই প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করায় সেচ্ছাচারিতায় মেতে উঠেছে।

বিষয়টি জানতে চেয়ে প্রধান শিক্ষকের নিকট একাধিকবার ফোন করলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, নৈশ প্রহরি দিয়ে আন্ত:ক্রিড়া প্রতিযোগীতা পরিচালনা করার কোন সুযোগ নেই। শিক্ষকরা এটি পরিচালনা করবে। এ ব্যাপারে ফোনে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

👉 নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন ✅

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24.Com

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

ধারণা ছিল একটা আঘাত আসবে: প্রধানমন্ত্রী

আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা পরিচলনা করলেন, নিলেন নৈশ্য প্রহরী

প্রকাশিত সময় :- ০৬:১৫:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ মে ২০২২

দিনাজপুরের হাকিমপুরে শিক্ষার্থীদের আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতায় শিক্ষক উপস্থিত না থেকে নৈশপ্রহরীর দ্বারা পরিচালনা করা হয়েছে। এক অভিভাবক বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে বলতে গেলে উল্টো লা নার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, আজ শনিবার উপজেলার ছাতনী রাউতারা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা চলছিল। ক্রিয়া প্রতিযোগীতাটি ওই স্কুলের নৈশ্য প্রহরী হাশের আলী পরিচালনা করছিল। সেখানে কোন শিক্ষক না থাকায় বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। এ অবস্থা দেখার পর মুসা মিয়া নামের এক অভিভাবক ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুলতানা পারভিনকে বলতে গেলে সেটির ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো তাকে গালিগালাজ করে বের করে দেয়। ]

মুসা মিয়া নামের ওই অভিভবক বলেন, স্কুলে মেয়েকে টিফিনের টাকা দিতে যাই। দেখতে পারি স্কুলমাঠে আন্ত:ক্রিয়া প্রতিযোগীতা চলছে। সেখানে কোন শিক্ষক উপস্থিত নেই। সেখানে নৈশ্য প্রহরী হাসেম আলী খেলা পরিচালনা করছে। এতে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। বিষয়টি প্রধান শিক্ষক সুলতানা পারভিনকে বললে উল্টো তুমি বলার কে। সেটা আমি দেখবো। ইত্যাদি বলে বের করে দেয়। তিনি আরোও বলেন, বৃহস্পতিবার মেয়েকে স্কুলে দেখতে গেলে জানতে পারে একটিও ক্লাস হয়নি। বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে বললে ক্লায় হয়নি তো কি হয়েছে তোমার কি করার আছে করো বলে গালিগালাজ করে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘ ১৯ বছর এই প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করায় সেচ্ছাচারিতায় মেতে উঠেছে।

বিষয়টি জানতে চেয়ে প্রধান শিক্ষকের নিকট একাধিকবার ফোন করলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, নৈশ প্রহরি দিয়ে আন্ত:ক্রিড়া প্রতিযোগীতা পরিচালনা করার কোন সুযোগ নেই। শিক্ষকরা এটি পরিচালনা করবে। এ ব্যাপারে ফোনে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন